বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:০২ পূর্বাহ্ন

স্নায়ুচাপে পড়ে গিয়েছিলেন : রোনালদো

উত্তরা নিউজ । ক্রীড়াঙ্গন
  • আপডেট টাইম: রবিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১

স্বপ্নীল প্রত্যাবর্তন নয়তো কী? দীর্ঘ ১২ বছর পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ফিরলেন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে। অভিষেক বলুন, কিংবা প্রত্যাবর্তন; থিয়েটার অফ ড্রিমসে কি দারুণভাবেই না কাজটা সারলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো! জোড়া গোল করলেন। দুটোই আবার ভেঙেছে ম্যাচের সাম্যাবস্থা। শেষমেশ দল জিতল ৪-১ ব্যবধানে।

তবে এমন এক প্রত্যাবর্তনের পরেও তিনি জানালেন, এমন ম্যাচের আগে নাকি দারুণ স্নায়ুচাপে ছিলেন তিনি! ম্যাচের যা পারফর্ম্যান্স, সেটাকে অবশ্য পর্তুগিজ এই কিংবদন্তি আখ্যা দিলেন ‘অবিশ্বাস্য’ বলেই।

ম্যাচের আগে যে স্নায়ুচাপে পড়ে গিয়েছিলেন, সে কথাটাকেই বরং অবিশ্বাস্য লাগতে পারে আপনার। ক্যারিয়ারে তো এর চেয়ে বড় অনেক মঞ্চেই খেলেছিলেন তিনি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে খেলেছেন, করেছেন গোলও; খেলেছেন ইউরো ফাইনালের মতো বড় মঞ্চে, এরপরও? হতেই পারে অবশ্য। দিনশেষে তিনিও তো মানুষ!

রোনালদো জানালেন, শুক্রবার রাত থেকেই চাপ অনুভব করতে থাকেন তিনি। খেলতে নামার আগে যখন দেখলেন ৭৬ হাজার মানুষের চিৎকারে মিশে আছে তারই নাম, তখন সেটা বেড়ে গেল পাল্লা দিয়ে। রোনালদোর সরল স্বীকারোক্তি, ‘সত্যি বলছি, খুব চাপে ছিলাম। যোগ্য হিসেবেই এই দলে খেলছি আমি, সেটা প্রমাণ করতে হবে আমাকে; এ ভাবনাটা মাথায় ঘুরছিল শুক্রবার রাত থেকেই। সে চাপটা ছিল। মাঠে নামার পর থেকেই সমর্থকদের চিৎকার আরও চাপ বাড়িয়ে দেয়।’

চাপ থাকলেও তা কাটিয়ে ওঠাই তো পেশাদারের কাজ। নামটা যখন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, তখন দায়িত্বটা বেড়ে যায় আরও। সে দায়িত্বটা পালন করতে পেরে রোনালদো যারপরনাই খুশি। বললেন, ‘ভাবিনি দুটো গোল করে ফেলব। আমি ভাল খেলতে চেয়েছিলাম। চাপে থাকলেও কাউকে বুঝতে দিইনি। সমর্থকদের খুশি করতে পেরে গর্বিত।’

তবে যে নিনাদ তাকে চাপে ফেলে দিয়েছিল বহুগুণে, সেটা আবার তাকে চমকেও দিয়েছে বেশ। রোনালদো বললেন, ‘গোটা বিশ্বের ফুটবলের থেকে ইংল্যান্ডের ফুটবল যে একেবারে আলাদা তা আমিও মানি। এখানে এসে যে সম্মান আমি পেয়েছি তাতে আমি অভিভূত।’

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩-২০২১
themesba-lates1749691102