১৬ বছর বয়সেই বাংলাদেশের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ - ০৭:৫৩:৩৯ অপরাহ্ন

তার যা বয়স, তাতে দক্ষিণ আফ্রিকায় চলমান অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলার কথা। নাসিম শাহকে অনুর্ধ্ব-১৯ দলে চেয়েছিলেনও পাকিস্তানের এই দলটির কোচ মঈন খান। কিন্তু জাতীয় দলের ম্যানেজমেন্ট তাকে ছাড়েনি। এই এতটুকুন বয়সে যিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন, তাকে কি আর অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে খেলতে পাঠানো যায়!

পাকিস্তান টিম ম্যানেজমেন্ট যে ভুল সিদ্ধান্ত নেননি সেটা বারবার প্রমাণ করে যাচ্ছেন পাকিস্তানের ১৬ বছর বয়সী এই তরুণ সেনসেশন। অবশেষে বাংলাদেশের বিপক্ষে হ্যাটট্রিকেই গড়ে ফেললেন তিনি। আজ রাওয়ালপিন্ডিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্টের তৃতীয় দিনে নাজমুল হোসেন শান্ত, তাইজুল ইসলাম এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে ফিরিয়ে দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকটি করলেন নাসিম শাহ।

মাত্র ১৬ বছর বয়সে অভিষেকেই বিস্ময় ছড়িয়েছিলেন নাসিম শাহ। অভিষেকের পর তার তুন থেকে বেরিয়ে আসছে ভয়ঙ্কর সব তীর। টেস্টে ফাইফার নিলেন সবচেয়ে কম বয়সে। এবার সবচেয়ে কম বয়সে হ্যাটট্রিক গড়ার কৃতিত্ব দেখালেন তিনি। অথচ এ নিয়ে খেলছেন মাত্র চতুর্থ টেস্ট ম্যাচ।

তামিম ইকবাল আউট হওয়ার পর নাজমুল হাসান শান্ত এবং অধিনায়ক মুমিনুল হক মিলে ৭১ রানের দারুণ এক জুটি গড়ে তোলেন। এই জুটি ভাঙার জন্য শেষ মুহূর্তে নাসিম শাহকে ডেকে আনেন পাকিস্তান অধিনায়ক আজহার আলি।

এসেই তিনি ৪১তম ওভারের চতুর্থ বলে তিনি ফিরিয়ে দিলেন নাজমুল হোসেন শান্তকে। এরপর নাইটওয়াচম্যান হিসেবে মাঠে নামানো হয় তাইজুল ইসলামকে। কিন্তু নাসিম শাহকে মোকাবেলা করতে পারলেন না তিনি। গোল্ডেন ডাক মেরে বিদায় নেন তাইজুল।

এরপর মাঠে নামেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তিনিও পারলেন না হ্যাটট্রিক ঠেকাতে। ওভারের শেষ বলে হারিস সোহেলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন রিয়াদ। হ্যাটট্রিকের উল্লাসে মেতে ওঠেন নাসিম শাহ এবং তার সতীর্থরা।

২০০২ সালে পাকিস্তানের হয়ে টেস্টে সর্বশেষ হ্যাটট্রিক করেছিলেন মোহাম্মদ সামি। তার প্রায় ১৮ বছর পর, সাদা পোশাকে হ্যাটট্রিকের দেখা পেলেন পাকিস্তানি তরুণ নাসিম শাহ।