১৫ দিনে শেষ হলো


» এইচ এম মাহমুদ হাসান | | সর্বশেষ আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ - ১২:২৭:৪৩ অপরাহ্ন

মার্চ থেকেই দেশে করোনাভাইরাসের প্রভাব শুরু। ধীরে ধীরে তা ভয়ংকর হয়ে উঠলে সারাদেশ লকডাউনে যায়। বন্ধ হয়ে আসে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। আর সবার মতো মহামারীর আতংক-ভয় নিয়ে দিন পার করেছেন অভিনেত্রী জয়া আহসানও।

জুন থেকেই খানিকটা স্বাভাবিক হতে শুরু করোনা পরিস্থিতি। সেই সময়টাতেই জয়া নেমে পড়েছিলেন শুটিংয়ে। প্রথমে শর্টফিল্মের প্ল্যান থাকলেও কাজ করতে করতে সেটা বিস্তৃত হয়ে ফিচার ফিল্মে রূপ নিয়েছে। নাম ঠিক না হওয়া এ ছবির খবর নিজেই জানালেন জয়া।

রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে ‘গেরিলা’ অভিনেত্রী এই ছবিতে কাজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন।

তিনি জানিয়েছেন, ছবিটি পিপলু আর খানের দ্বিতীয় পরিচালনা। তবে প্রথমবার চিত্রনাট্য লিখেছেন তিনি। তার সহযোগী হিসেবে ছিলেন নুসরত মাটি।

আরও একটি তথ্য হলো, অভিনয়ের পাশাপাশি ছবিটির প্রযোজনাও করেছেন তিনি। অ্যাপেল বক্স ফিল্মস, আবু শাহেদ ইমনের বক্স অফিস মাল্টিমিডিয়ার সঙ্গে জয়ার প্রযোজনা সংস্থা সি তে সিনেমা এই ছবির প্রযোজনার দায়িত্বে আছে।

তবে কি নিয়ে ছবিটির গল্প তা জানাননি তিনি। নিজে প্রযোজক হলেও পরিচালকের অনুরোধে গল্পের রহস্যটা জিইয়ে রেখেছেন দর্শকের জন্য। জয়া বললেন, ‘বেশি বলা বারণ। তাই কথা না বাড়িয়ে পাঁচখানা ছবি দিলাম আমার দর্শকদের জন্য। আমার আগামী ছবির আগমনী বার্তা।’

ছবিটির শুটিং সম্পন্ন হয়েছে মাত্র ১৫ দিনে। করোনার জন্য সতর্কতায় টিমও ছিলো খুবই ছোট, যোগ করেন দুই বাংলার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে ‘দেবী’ দিয়ে প্রযোজক জয়ার আত্মপ্রকাশ। এরপর ঘোষণা আসে তার প্রযোজনায় নির্মিত হবে ‘ফুড়ুৎ’ নামের সিনেমা। তবে তার আগেই দ্বিতীয় ছবি হিসেবে তিনি নাম ঠিক না হওয়া এই ছবিটি শেষ করলেন।