হাসপাতালে গুরুতর জখম অবস্থায় মা আসমা বেগম

মানবতার জন্য প্রশাসন নেই!

» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ১৮ নভেম্বর ২০১৯ - ০৬:১০:৫৯ অপরাহ্ন

বদরগঞ্জ থেকে : রংপুরের বদরগঞ্জ পৌর এলাকার ৮নং ওয়ার্ডের আসমা বেগম (৪১), তার স্বামী আব্দুল মমিন (৪৯) ও তার ছেলে আসমত (২৫) সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়। ঘটনাটি ঘটে গত শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) ১৩ নং রেলঘুন্টি চত্ত্বরে। এ বিষয়ে বদরগঞ্জ থানায় ওই দিন একটি অভিযোগ করা হয়।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, আসমত ও তার স্ত্রী ইছরণ (২৩) এর পারিবারিক কলহকে কেন্দ্র করে পাশ্ববর্তী এলাকাবাসী আজিজল মেম্বার ও তার ছেলে নবী (২০) ও জুয়েল (৩৩) এবং আছর আলী (৭০) এ সন্ত্রাসী হামলা চালায়। আসমত জানায়, আমাদের স্বামী -স্ত্রীর কলহের জন্য “বদরগঞ্জ তৃণমূল নেতৃত্ব বিকাশ নেটওয়ার্ক” -এ সুষ্ঠু বিচারের আশায় আবেদন করি। ওই প্রতিষ্ঠানের সালিশের ডাকে তাদের সাড়া না পাওয়ায় প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ আমাকে একটি প্রত্যয়ন প্রদান করে। প্রত্যয়ন নেয়ার কারণে তারা আমাকে অকথ্য ও অশ্লীল গালিগালাজ করে এক পর্যায়ে এলোপাথারী কিলঘুষি মারতে থাকে। আমার মা আসমা বেগম আমাকে তাদের হাত থেকে বাঁচাতে এলে তাকেও আজিজল মেম্বার রেললাইনের পাথর দিয়ে চোখে, কপালে ও মাথায় আঘাত করে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে। মেম্বারের ছেলে জুয়েল মায়ের গলা চেপে ধরে এক সময় শ্লীলতাহানী করে তারা।এ বিষয়ে ১৫ নভেম্বর ১৯ইং তারিখে বদরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ করি। অভিযোগের দুইদিন পর থানা পুলিশ তদন্ত করে। এ পযর্ন্তই। আমার মা বদরগঞ্জ হাসপাতালে গুরুতর আহত অবস্থায় দিনযাপন করছে। মানবতার জন্য প্রশাসন নেই। কি করল থানা পুলিশ! আমরা গরীব মানুষ কি করব ভেবে পাচ্ছি না।

বদরগঞ্জ হাসপাতালে আহত আসমা বেগম জানায়, অনেক মারপিট করেছে আমাকে ও আমার ছেলেকে। আমার নাকের সোনার ফুলটিও খুলে নিয়েছে তারা! বদরগঞ্জ হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার বলেন, ইঞ্জুরি অনেক হয়েছে । এটি পুলিশ কেস!

বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান হাওলাদার বলেন, বিষয়টি তদন্ত করছি। পরবর্তীতে জানাচ্ছি।