সৎ মায়ের নির্যাতনে শিশু তিথি প্রায় প্রতিবন্ধী


» এইচ এম মাহমুদ হাসান | | সর্বশেষ আপডেট: ১৩ অক্টোবর ২০২০ - ১০:৩৯:৫৯ পূর্বাহ্ন

গোলাম রাব্বি প্লাবন, দেবিদ্বার সংবাদদাতা: কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার বরকামতা ইউনিয়নের বরকামতা গ্রামের বিরাম বাড়ীর জামাল উদ্দীনের (অবসরপ্রাপ্ত র‌্যাব) সদস্য প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর লাভলী আক্তার নামে প্রেমু সরকারি প্রাইমারী স্কুলের শিক্ষিকাকে বিয়ে করেন।
ইসরাত জাহান তিথি জামালউদ্দিনের আগের বউয়ের সন্তান। সে প্রাইমারি স্কুলে পড়ে। ঘাতক লাভলী আক্তার তিথির সৎ মা।
কিন্তু একজন শিক্ষিত নারী ও মা কি করে এমন অমানবিক নির্যাতন করে এই অবুঝ শিশুকে তা উপস্থিত সকলকে বিস্মিত করেছে। শিশুটির শরীরে নতুন পুরোনো মারের দাগ ভয়াবহ নির্যাতনের চিত্র ফুটে উঠে। প্রতিবেশীরা জানায় বিয়ে করে আনার পর থেকেই এই ঘাতক লাভলী আক্তার এই মা হারা এতিম তিথির উপর নির্যাতন করে আসছিলো।
অবুঝ মেয়েটি মার খেতে খেতে প্রায় প্রতিবন্ধীর মতো হয়ে গেছে। পিতা জামালউদ্দিনের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। ধারনা করা হচ্ছে তিনি ঘাতক লাভলী আক্তারের কাছে এক প্রকার অসহায়। এই ঘটনা প্রকাশ পাওয়ার পর থেকে সাংবাদিক হতে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষের ভিড় ঐ বাড়িতে মেয়েটিকে এক নজর দেখার জন্য এবং সবার দাবী তদন্ত সাপেক্ষ আশু ব্যাবস্থা গ্রহন করার হউক।