স্বাধীনতা – মুহাম্মাদ আবু হানীফ


» এইচ এম মাহমুদ হাসান | | সর্বশেষ আপডেট: ০৯ জানুয়ারি ২০২১ - ০১:২৭:৪১ অপরাহ্ন

স্বাধীনতা!

তোমায় খুজে ফিরি পলাশির রাত থেকে।

তোমার বিচ্ছেদে ক্ষতবিক্ষত এ বাংলা।

তোমার বিরহে মুমূর্ষু এ বাঙালী।

তোমার আলিঙ্গনের অপেক্ষায় আমরা- মুসলিমান।

স্বাধীনতা!

তোমার আস্তিনে সুখ পেতে বুক পেতেছি বার বার। রক্তাক্ত হয়েছি বহু সংগ্রামে, লড়াইয়ে।

দর্শকেরা মনে করতো যেনো রং মেখেছি।

অথচ আমি প্রায় মৃত।

স্বাধীনতা!

তোমায় অপহরণকারী ইউরোপের উদ্ভুত ধর্মহীন রাজনীতির জগদ্দল পাথরে আমি নাভিশ্বাস। ঝুলে আছি মৃত্যু উপত্যকায় ।

নমতে কেটে যাচ্ছে দিন। ভাস্কর্য, ছেলেভুলানো কিছু চেতনা, লাল আর সবুজ রং ছাড়া ৫০ বছরে কিছুই পাইনি।

স্বাধীনতা! লাল-সবুজের এ বাংলার প্রায় রাজনীতিকরা মুসলিম হলেও ইসলামভিত্তিক রাষ্ট্রচিন্তায় ভয়। অনেকেই মনে করে ধর্মে-ধর্মে সংঘাত বাঁধবে। এ দেশে তো একাধিক ধর্ম! আচ্ছা, আমরা কি একাধিক দল মুক্ত? না তো!

অন্য ধর্মে কি রাষ্ট্রচিন্তা আছে?

না তো! ইসলাম কি ধর্মীয় স্বাধীনতা কেড়ে নেয়? না তো!

তাহলে জনতার বোধ-চেতনার মূল্যায়ন করে হলেও Majority mast be granted অনুসারে ইসলামভিত্তিক রাষ্ট্রচিন্তা করা যায় না কেন?

স্বাধীনতা!

যদি স্রেফ মুসলিম রাজনীতিকরাও ধারণকরতো ঐশ্বীবানী

اِنَّما الْحَيٰوۃُ الدُّنْيَا لَعِبُ وَّ لَهْوٌ ! অর্থ – পার্থিব জীবন তো খেল-তামাশা মাত্র! ( সূরা মুহাম্মাদ : ৩৬) … مَتَاعُ الدُّنْيَا قَلِيْلٌ ! অর্থ – পার্থিব ভোগ সামান্য। ( সূরা নিসা : ৭৭) পার্থিব ভোগে ছুটোছুটি করতো না, খাই-খাই রাজনীতি বন্ধ হতো! নিরানন্দ বাংলাদেশ বদলে যেত।

উল্লাসিত হত। বিজয় আর স্বাধীনতা হতো অর্থবহ!