মুহাম্মদ গাজী তারেক রহমান মুহাম্মদ গাজী তারেক রহমান
উত্তরা নিউজ


সেমাইতে ভেজাল মেশায় প্রাণ-মধুবনসহ ৮ কোম্পানি: বিএসটিআই






দেশের জনপ্রিয় ৮টি কোম্পানির লাচ্ছা সেমাইয়ে ক্ষতিকর উপাদান পেয়েছে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্স অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই)। সম্প্রতি রমজান উপলক্ষ্য বিএসটিআই বাজার থেকে ৪০৬টি পণ্য সংগ্রহ করে পরীক্ষার করে। বৃহস্পতিবার (২ মে) মতিঝিলে শিল্প মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

সংগ্রহ করা নমুনা পরীক্ষা করার পরে ৩১৩টি পণ্য তালিকার ৫২টি কম্পানির ৫২টি পণ্য নিম্নমানের বলে জানায় বিএসটিআই। এর মধ্যে প্রাণসহ আরো ৭টি প্রতিষ্ঠানের লাচ্ছা সেমাইকেও নিম্নমানের বলে উল্লেখ করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) হাইকোর্টের এসব পণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহারের নির্দেশনা চেয়ে একটি রিট আবেদন করে আইনজীবী শিহাব উদ্দিন খান। । রিটে গুণগত মান উন্নত না হওয়া পর্যন্ত এসব পণ্যের উৎপাদন বন্ধ করার জন্য নির্দেশনাও চাওয়া হয়। বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চে রিটের শুনানি হবে।

বিএসটিআই’এর নিম্নমানের লাচ্ছা সেমাইয়ের তালিকায় নাম রয়েছে প্রাণ এগ্রো লিমিটেডের প্রাণ লাচ্ছা, মিষ্টিমেলা ফুড প্রোডাক্টাসের মিষ্টিমেলা লাচ্ছা, মধুবন ব্রেড এন্ড বিস্কুট ইন্ডাজট্রি প্রাইভেট লিমিটেডের মধুবন লাচ্ছা, মিঠাই সুইটস এন্ড বেকারীর মিঠাই লাচ্ছা, ওয়েল ফুড এন্ড বেভারেজের ওয়েল ফুড লাচ্ছা, মেসার্স কিরণ ট্রেডার্সের কিরণ লাচ্ছা, মেসার্স জেদ্দা ফুড ইন্ডাস্ট্রিজের জেদ্দা লাচ্ছা ও মেসার্স অমৃত ফুড প্রোডাক্টসের অমৃত লাচ্ছা।

এ প্রসঙ্গে বিএসটিআইয়ের পরিচালক (সিএম) প্রকৌশলী এস এম ইসহাক আলী বলেন, ‘অভিযুক্ত কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে এরইমধ্যে সতর্ক করে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। অচিরেই এসব কোম্পানিতে অভিযান চালানো হবে। এরপরেও যদি পণ্যের গুণগত মান ঠিক না করা হয় তবে এসব কোম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

ইসহাক আলী আরো বলেন, ‘রমজান মাসে সরিষার তেল, লবণ, হলুদ ও মরিচের গুড়া, লাচ্ছা সেমাই, ঘি ও দই বেশি ক্রয় করে সাধারণ মানুষ। এর বাইরে পানির প্রয়োজন হয়। এসব পণ্য নিম্নমানের হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করতে হয়েছে। আমরা কি খাই প্রতিদিন- এই চিত্র দেখলেই বোঝা যায়। প্রতিবেদনের কপি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।’ অচিরেই এসব কোম্পানির বিরুদ্ধে জোরালো ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে বলে উল্লেখ করেন পরিচালক।