সিটি নির্বাচন; ভোটগ্রহণের দিনক্ষণ নিয়ে ধোঁয়াশা!


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ১৮ জানুয়ারি ২০২০ - ১২:৪৯:৩৫ অপরাহ্ন

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত ৩০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর নির্বাচনে ভোটগ্রহণের দিনক্ষণ নিয়ে ধোঁয়াশা কাটেনি। একই দিন হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সরস্বতী পূজা থাকায় নির্বাচনের দিনক্ষণ পেছনোর জোর দাবি উঠেছে।

ভোটগ্রহণের দিনক্ষণ পেছানোর দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে তৃতীয় দিনের মতো আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তাদের কর্মসূচির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। আমরণ অনশন কর্মসূচি পালনকালে একাধিক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। অসুস্থদের চিকিৎসায় শরীরে আইভি ফ্লুইড পুশ করা হচ্ছে।

এদিকে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ, জাতীয় সংসদে প্রধান বিরোধীদল জাতীয় পার্টি ও বিএনপিসহ বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা বলছেন, ভোটের দিনক্ষণ পেছালে তাদের আপত্তি নেই। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও বলেছেন, ভোটগ্রহণের দিনক্ষণ পেছালে সরকার বা তাদের দলের কোনো আপত্তি নেই।

এমন প্রেক্ষাপটে নগরবাসীদের প্রশ্ন, ৩০ জানুয়ারি পূর্বঘোষিত দিনক্ষণেই কি দুই সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণ হবে? নাকি পেছালে কয়দিন পেছাবে? অন্যদিকে বিভিন্ন সূত্র বলছে, আগামী ২/১ দিনের মধ্যে ভোটগ্রহণের দিনক্ষণ পেছানো কিংবা নির্ধারিত তারিখেই ভোটগ্রহণের ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন থেকে বিস্তারিত ব্যাখ্যাসহ ঘোষণা আসতে পারে।

শনিবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় সরেজমিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে ঘুরে দেখা যায়, সরস্বতী পূজার দিন হওয়ায় ভোটগ্রহণের তারিখ পেছানোর দাবিতে আন্দোলনরত ঢাবি শিক্ষার্থীরা তৃতীয় দিনের মতো আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করছেন। কম্বল-কাঁথা মোড়া দিয়ে অনেকেই ঘুমাচ্ছেন। তাদের কারও কারও শরীরে স্যালাইন চলছে।

একজন চিকিৎসককে প্রেসার মাপার যন্ত্র হাতে অসুস্থ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলাপ করতে দেখা যায়। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের কয়েকজন জানান, তারা ন্যায্য দাবি নিয়ে আমরণ অনশনে নেমেছেন। তাই নির্বাচন কমিশনকে ভোটগ্রহণের দিনক্ষণ পরিবর্তন করতেই হবে। দাবি আদায় না হলে মরে গেলেও তারা কর্মসূচি থেকে পিছপা হবেন না।

এদিকে রাজু ভাস্কর্যের সামনে দিয়ে রিকশাচালক, মোটরসাইকেল চালক, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাসযোগে কিংবা পথচারী যারাই যাচ্ছেন তারাই ভাস্কর্যগুলোর দিকে হতবাক হয়ে তাকাচ্ছেন। কারণ, প্রতিটি ভাস্কর্যের চোখ কালো কাপড় দিয়ে বেঁধে দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে শিক্ষার্থীরা জানান, নির্বাচন কমিশন সরস্বতী পূজার দিন জেনেশুনে সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণের দিন ঘোষণা করেছেন। তাই তারা (নির্বাচন কমিশন) একার্থে অন্ধ। ফলে প্রতীকী হিসেবে ভাস্বর্যের চোখ কালো কাপড় দিয়ে বেঁধে দেয়া হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ৩০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এবার দুই সিটির প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে ইভিএমের মাধ্যমে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ।

 

সূত্রঃ জাগো নিউজ