শিবগঞ্জ উপজেলার সেলিম রেজা ও সুমন আলীকে বিএসএফ গুলি করে হত্যার প্রতিবাদ করেছে নাগরিক পরিষদ


» Md. Neamul Hasan Neaz | | সর্বশেষ আপডেট: ০৯ জানুয়ারি ২০২০ - ০৬:০৭:২৮ অপরাহ্ন

চীন, পাকিস্তান, মায়ানমার, নেপাল, ও ভুটান সিমান্তে ভারত গুলি চালানোর সাহস দেখাতে ব্যার্থ হলে ও স্বাধীনতার পর থেকে অদ্যবধি প্রায় এক হাজার সাতশ জন বাংলাদেশী নাগরিককে হত্যা করেছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষাকারী বাহিনী-বিএসএফ।
আজ  চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার ওয়াহেদপুর সীমান্তে  সরকারপাড়ার সেলিম রেজা ও দশরশিয়া গ্রামের  সুমন আলী ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিএসএফের গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে এক বিবৃতিতে নাগরিক পরিষদের আহ্ববায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দীন বলেন , জনগন কর্তৃক নির্বাচিত না হয়ে ভারতের উপর নির্ভরশীল সরকার এবং দিল্লির অনুগ্রহ প্রত্যাশী জাতিয়তাবাদিরা সিমান্ত আগ্রাসন রুখতে ব্যর্থ।

তিনি বলেন চীন, পাকিস্তান, মায়ানমার, নেপাল, ও ভুটান সিমান্তে ভারত গুলি চালানোর সাহস দেখাতে ব্যার্থ হলে ও স্বাধীনতার পর থেকে অদ্যবধি প্রায় এক হাজার সাতশ জন বাংলাদেশী নাগরিককে হত্যা করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিএসএফ। এই মূল্যবান জীবনহানি রুখতে ব্যার্থরা বার বার দিল্লির হাত ধরে বাংলার মসনদে আসিন হয়, যা খুবই দুঃখ জনক। বার বার সর্বভৌমত্ব লংঘন করেও বাংলাদেশে ঢুকে সাধারণ নাগরিকদের তুলে নিয়ে যায় যা আমাদের স¦াধীনতার চেতনার পরিপন্থি। তারা আমাদের স্বাধীন সার্বভৌমত্বকে সম্মান করে না।

নাগরিক পরিষদের আহ্ববায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দীন আরো বলেন, ৭ জানুয়ারী ফেলানী দিবসে নগরিক পরিষদ সীমান্ত আগ্রাসান বন্ধে ফেলানী হত্যার বিচারের দাবী উথ্থাপন করলেও সরকার নিশ্চুপ এবং দিল্লির অনুগ্রহ প্রত্যাশি জাতিয়তাবাদীরা নির্বাক তাই সীমান্ত আগ্রাসান বাংলাদেশী নাগরিকের জীবন হানি সার্বভৌমত্ব লংঘন বন্ধ হচ্ছে না। তিনি ভারত কর্তৃক অবিলম্বে সীমান্ত আগ্রাসান সার্বভৌমত্বের লংঘন ও সাংস্কৃতিক রোধে জাতীর ঐক্য গডে তোলার আহ্ববায়ক জানান।