শিক্ষার্থীদের একজনের থুথু আরেকজনকে খেতে বাধ্য করে স্কুল শিক্ষক

ডেস্ক রিপোর্ট: রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছ চতুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শাস্তি হিসেবে একজনের থুথু অন্যজনকে খাওয়াতে বাধ্য করার অভিযোগ উঠেছে জামাল উদ্দিন নামে এক শিক্ষক্ষের বিরুদ্ধে। দিনের পর দিন এমন শাস্তির কারণে স্কুলে যেতে শিক্ষার্থীদের অনীহা সৃষ্টি হয়েছে। গত মঙ্গলবার আবারও থুথু খাওয়ানোর ঘটনার ফুঁসে উঠেছেন অভিভাবকসহ শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনার বিচার দাবিতে বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ করেছেন তারা।

ওই স্কুলের ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী পলি আক্তার, বিলকিছ ও কুলছুমসহ একাধিক শিক্ষার্থীর অভিযোগ, কোনো কিছু হলেই জামাল স্যার মারধর করেন। এছাড়াও একজনের থুথু অন্যজনকে খেতেও বাধ্য করেন। এ কারণে ভয়ে-লজ্জায় তারা স্কুলে যেতে চায় না।

স্থানীয় অভিভাবক আব্দুল জলিল, হাবিব ও আমির হোসেনসহ অনেকে জানান, ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এর আগেও শিক্ষার্থীদের প্রতি অমানবিক আচরণের অভিযোগ উঠেছে। শিশুদের থুথু খাওয়ানোর কারণে তারা স্কুলে যেতে চায় না। এ ঘটনার বিচার দাবি করেন অভিভাবকরা।

পড়া না পারায় মারধররের পর শিক্ষার্থীদের থুথু চাটানোর বিষয়টি স্বীকার করে জামাল উদ্দিন বলেন, আমার অপরাধ হয়েছে। আমাকে ক্ষমা করবেন।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক খালেদা আক্তার বলেন, ঘটনার বিষয়ে শনিবার ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের নিয়ে সভা আহ্বান করা হয়েছে। সভার পর অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *