শিক্ষক দম্পতির উদ্যোগে দৈনিক ২’শ পথশিশু ও অনাহারী পাচ্ছে এক বেলা অন্ন


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ২০ মে ২০২০ - ১০:১৮:১৮ পূর্বাহ্ন

কারো কোন পৃষ্টপোশকতা ছাড়াই নিজস্ব উদ্যোগে দেশের এই ক্লান্তি লগ্নে দৈনিক প্রায় ২’শ পথশিশু ও অনাহারীদের মাঝে এক বেলা অন্ন নিয়মিত বিতরণ করছেন এক শিক্ষক দম্পতি।
নরসিংদী সদর উপজেলার অন্যতম ব্যস্ত পৌর শহর মাধবদীতে এমনই এক মানবিক দম্পতির ভালবাসায় সিক্ত হয়ে এক বেলা পেট পুরে খেতে পারছে অনাহারী পথশিশু ও অসহায় ক্ষুধার্ত ভাসমান লোকেরা। একটি কিন্ডার গার্টেন স্কুলের শিক্ষক সাহিত্যানুরাগী এম মাহামুদুল হাসান, এবং তার সহ ধর্মীনি সাহিত্যিক ব্যক্তিত্ব  নূর হুমায়রা আহমেদ পিংকির এ কার্যক্রম অতি  অল্প সময়েই স্থানীয় ও পথশিশুদের মন কাড়তে সক্ষম হয়েছে।
স্বামী স্ত্রী দুজনেরই এ নিয়ে অনেক বড়সর পরিকল্পনা থাকলেও সীমিত আয়ের জমানো টাকা দিয়ে প্রতিদিন স্ত্রী মানবাধিকার কর্মী নূর হুমায়রা আহমেদ পিংকি তাদের সাধ্যানুযায়ী নিজ হাতে খাবার রান্না করে সেই খাবার পথশিশু ও অনাহারীদের মুখে তোলে দিতে স্বামী এম.মাহমুদুল হাসানের হাতে দিয়ে রাস্তায় পাঠিয়ে দেন।
আর সেই খাবার ভ্যানগাড়ি দিয়ে রাস্তায় রাস্তায় বিলি করেন তিনি। প্রথমে নিজেদের স্বল্প আয়ের জমানো টাকায় এ মহৎ কাজটি ছোট পরিসরে শুরু করলেও কয়েক দিনের মাথায় তাদের এমন মহতী কাজে উদ্বোদ্ধ হয়ে অনেকে সহযোগীতার হাত বাড়ায়। ফলে সহযোগীদের অনুপ্রেরণা আর সহায়তায় এখন দীর্ঘসময় এ কার্যক্রম পরিচালনা করার সম্ভাবনা দেখছেন তারা। এতে করে এ কার্যক্রম কয়েকদিনেই ইতি না ঘটিয়ে চলমান রাখার প্রয়াস করেন শিক্ষক দম্পতি।
১৮ মে সোমবার এ দম্পতি ২০০ জন পথশিশু ও অনাহারীর হাতে খাবার তুলে দেয়। এক বেলা অন্ন পেয়েছে এমন একটি পথশিশুর সাথে কথা হয়, সে বলছে, “মাঝে মাঝে লোক আসে, খাবার বিলি করে। আমরা সে খাবার নিয়ে খাই।আমাদের অনেক ভাল লাগে। আমি জানি না ওরা কে।এদিকে এ আয়োজনের আয়োজক শিক্ষক এম.মাহামুদুল হাসান বলেন, দেশে করোনা মহামারি চলাকালিন সময় পর্যন্ত তারা সাধ্যমত এ কর্মসূচী চলমান রাখতে চান।
তিনি সারা দেশের সকল বিত্তবান মানুষদেরকে তার নিজের আশেপাশের গরীব অসহায় মানুষের প্রতি সহায়তার পরম হাত বাড়িয়ে দিতে উদাত্ত আহবান জানান। তার সহধর্মিনী বলেন, ছোট থেকে অন্যের জন্য কিছু করার মানসিকতা সবসময় কাজ করত। আর বর্তমান সময়ে ক্ষুদ্র পরিসরে হলেও সেই সপ্নের আশার আলো দেখছি। এ কর্মসূচীতে সার্বিক সহযোগীতা করেন, জাতীয় পরিষদ সদস্য শহিদুল্লাহ পিয়াস, নক্ষত্র খেলাঘর আসরের ক্রীড়া সম্পাদক তানভীর আহম্মদ, ধ্রুবতারা খেলাঘর আসরের যুগ্ম আহবায়ক আলিমুল হক বাপ্পি, কার্যকরী সদস্য অনিতা শেখ প্রমূখ।