উত্তরা নিউজ উত্তরা নিউজ
অনলাইন রিপোর্ট


লক্ষীপুরে পুলিশের উদ্যোগে নও মুসলিম পরিবারকে দোকান ঘর নির্মাণ






উত্তরা নিউজ টোয়েন্টিফর ডটকম। নিজস্ব প্রতিবেদক: লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের সদ্য মুসলিম হওয়া আব্দুর রহমানের পরিবারের উপার্জনের জন্য এলাকাবাসীর সহযোগিতায় এক লক্ষ দশ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মিত একটি দোকানঘর (মালামালসহ) নও মুসলিম আব্দুর রহমানের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। রামগঞ্জ থানার মানবতার ফেরিওয়ালা খ্যাত পুলিশ অফিসার এস আই জহির উদ্দীনের উদ্যোগে এই মহৎ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলায় ইছাপুর ইউনিয়নে গত ১৪ই ফেব্রুয়ারি একই পরিবারের ৫জন হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেন। লক্ষ্মীপুর সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গিয়ে এফিডেভিট করে তারা ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেন।

সুত্রে জানা যায়, উপজেলার ৪ নং ইছাপুর ইউনিয়নের শ্রীরামপুর কুরি বাড়ির পলাশ কুরি (৩২) ইসলাম ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে গেল মাসে স্বপরিবারে আদালতে গিয়ে বিধি মোতাবেক নাম পরিবর্তনের মাধ্যমে তার নাম আবদুর রহমান এবং স্ত্রী শিখা রানী কুরির স্থলে সুমাইয়া বেগম, বড় মেয়ে অন্বেষা রানী কুরি স্থলে আয়েশা আক্তার, ছোট মেয়ে উর্সি রানী কুরি স্থলে খাদিজা আক্তার এবং পুত্র আবির চন্দ্র কুরি স্থলে মোঃ ইব্রাহিম রেখে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেন।
বিষয়টি জানতে পেরে নও মুসলিম আব্দুর রহিমের বাড়িতে ছুটে যান রামগঞ্জ থানার পুলিশ অফিসার জহির উদ্দীন এবং নও মুসলিম পরিবারটির সহযোগিতার জন্য পুলিশ অফিসার জহির উদ্দীন তাঁর সকল বন্ধু ও নিকট আত্মীয়দের কাছে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানায়। গত মাসের ১৮ তারিখ হতে চেষ্টা চালিয়ে জহির উদ্দীন রামগঞ্জের একাধিক সমাজসেবক ও মানবিক সংগঠনগুলোর কাছ হতে প্রায় এক লক্ষ দশ হাজার টাকা সংগ্রহ করেন।
শেষ পর্যন্ত গত ২৮ শে মার্চ নও মুসলিম পরিবারটিকে লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের নিজ গ্রামে এক লক্ষ দশ হাজার টাকার বিনিময়ে মালামালসহ একটি সেমি পাকা দোকান ঘর নির্মাণ করে দিতে সক্ষম হন বাংলাদেশ পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে এস আই জহির উদ্দীন গণমাধ্যমে বলেন, “আমি প্রায় ১,১০,০০০/- টাকার মত বিভিন্ন মাধ্যম হতে সংগ্রহ করেছে। এছাড়াও পদ্মা ইলেকট্রনিক্স এর সত্ত্বাধিকারী জনাব আনোয়ার সাহেব আর্থিকভাবে কাজটিতে সহযোগিতা করেছেন। সর্বপরি আমার যেসব বন্ধু ও নিকটত্মীয় নও মুসলিম পরিবারটির জন্য সহযোগিতার হাত সম্প্রসারিত করেছেন, তাঁদের সবাইকে অন্তর থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।”
প্রসঙ্গত, গত ২৮ মার্চ নও মুসলিম আব্দুর রহমানের পরিবারকে দোকানঘরটি হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন ইছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহীদ উল্ল্যা, পদ্মা ইলেকট্রনিক্স এর সত্ত্বাধিকারী আনোয়ার হোসেনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

/মুহাম্মদ গাজী তারেক রহমান/উত্তরা নিউজ টোয়েন্টিফর ডটকম