রাহি নাকি তাসকিন ক্রিকেট পাড়ায় আলোচনা

উত্তরা নিউজ ডেস্কঃ ক্রিকেট পাড়ায় নতুন আলোচনার বিষয় তাসকিন আহমেদ ও আবু জায়েদ রাহি। রাহির বদলে তাসকিন ঢুকছেন বিশ্বকাপ স্কোয়াডে এমন খবর ছড়িয়ে পড়ার পরেই এই নিয়ে হচ্ছে আলোচনা। আজ নিজ বাসভবনে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এই বিষয়ে কথা বলেছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন।

এখন পর্যন্ত এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেন নি জানিয়ে পাপন বলেন, ‘এরকম কোন সিদ্ধান্ত আমরা নেইনি, এখন পর্যন্ত। আপনারা যদি দেখেন ওখানে যে আমাদের চারজন পেসার আছে- মাশরাফি, মুস্তাফিজ, রুবেল ও রাহি। এদের চারজনের উচ্চতা মোটামুটি একই রকম। ওদের গতিও মোটামুটি একই রকম। রুবেল ব্যতিক্রম, ও একটু জোরে বল করে। ওদের বলের স্টাইলও একই রকমের প্রায়। ভেরিয়েশন চাইলে তাসকিনকে ওরা মনে করে একটু আলাদা। কেনো? এক হচ্ছে ওর উচ্চতা, দুই হচ্ছে ওর গতি ও বাউন্সার। এগুলো দরকার বলে মনে হচ্ছে। আসলে দরকার কিনা জানি না।’

বিসিবি বস যোগ করেন, ‘ও থাকলে দলে ভেরিয়েশনটা আসে। কিন্তু ও থাকলে যে দলে খেলতে পারবে এটার কিন্তু নিশ্চয়তা এখন পর্যন্ত নেই। ওখানে মাশরাফি, মুস্তাফিজ, সাইফউদ্দিন খেলছে। রুবেলের মতো প্লেয়ার বসে আছে। এরা না থাকলে আমরা তাঁর কথা বিবেচনা করতে পারি। সেজন্য তাসকিনের নাম আসছে। তাসকিন প্রথমে কেনো লিস্টে ছিলো না? ও ছিলো না কারণ ইনজুরি থেকে ফিরে এসে ও ফিট ছিলো না। আনফিট প্লেয়ারের নাম দেবো কিভাবে? আগে তো ফিট হতে হবে! আপনারা বলতে পারেন ও তো ফিট। কিন্তু এখনো আমাদের কাছে রিপোর্ট হচ্ছে ও পুরোপুরি ফিট না। ও বল করছে, তবে এখনো ও পুরোপুরি ফিট না। ও রিদমে আসে নি, ওর লাইন- লেংথ এখনো ঠিক হয়নি। ওর সবকিছু এখনো ঠিক হয়নি।’

তবে নাজমুল হাসান পাপন মনে করেন রাহিকে সুযোগ না দিয়েই তাসকিনকে দলে নেওয়া ঠিক হবে না।

তিনি বলেন, ‘এখন পুরোপুরি ঠিক হবার আগেই আমাকে যদি ব্যক্তিগতভাবে জিজ্ঞাসা করেন সেই জায়গায় রাহিকে বাদ দিয়ে, রাহিকে কোন সুযোগ না দিয়ে আমি আরেকজনকে ঢোকাবো এটা ঠিক হবে না। ওরা যদি করতে চায় এটা ঠিক হবে না- এটা আমার ব্যক্তিগত অভিমত। আমার কাছে এখনো এরকম প্রোপোজাল আসে নাই, আপনাদের মাধ্যমেই জানতে পারছি। কিন্তু এই চিন্তাটা সবসময়ই ছিলো যে ও যদি ভালো করে আমরা তাহলে রিপ্লেস করতে পারবো আমাদের হাতে যে সময় আছে।’

সেক্ষেত্রে ত্রিদেশীয় সিরিজে পরবর্তী ম্যাচ জিতলে ফাইনালের আগে শেষ ম্যাচে পরীক্ষানিরীক্ষা চালাবে দল। আর তাসকিনকে নেওয়া হবে কিনা সেই উত্তরে পাপনের সাফ জবাব শতভাগ দিতে হবে, আর অন্যদের চেয়ে সুপিরিয়র হতে হবে।

‘যদি ফিট থাকে এবং নিজের শতভাগটা দিতে পারে। আসলে আমরা তো কম্পেয়ারের সুযোগটাই পাইনি। রাহিতো এখনো এক ম্যাচও খেলেনি। প্র্যাকটিস ম্যাচে খেললেও তো বুঝতাম। ওর তো বলই দেখা হলো না। আমার মনে হয় এটা নিয়ে কথা বলার জন্য এই সময় ইজ ঠু আর্লি। কারো যদি ইনজুরি হয় বা আমরা যদি মনে করি সে ফিট, শতভাগ দিতে পারবে এবং অন্যের চেয়ে সুপিরিয়র তখন আমরা চিন্তা করবো। পরবর্তী ম্যাচ যদি আমরা জিতে যায় তাহলে লাস্ট ম্যাচে আমরা পরীক্ষা নিরীক্ষা করে নিতে পারবো।’

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: