রাতের আধারে গোপনে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছেন যুবলীগনেতা আহাম্মদ উল্লাহ্ মধু


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ১১ এপ্রিল ২০২০ - ০৮:৫৮:৫৯ অপরাহ্ন

শহিদুল্লাহ সরকার; মধ্যবিত্তের দরজায় রাতে গোপনে ত্রাণ পৌঁছে দিচ্ছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন মেয়র ব্যরিস্টার ফজলে নূর তাপসের পক্ষে মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আহাম্মদ উল্লাহ্ মধু।
করোনাভাইরাস মহামারীতে দীর্ঘদিন ধরে অঘোষিত লক ডাউনের পর ঢাকা অবরুদ্ধ হয়ে পড়ায় বিপাকে পড়েছেন মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্তরা। তারা কাউকে কিছু বলতে পারছেন না। অন্যদিকে দাঁড়াতে পারছেন না ত্রাণের লাইনে। ফলে দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে তাদের জীবন। এমন তথ্য পেয়ে মধ্যবিত্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। মধু বলেন, ‘এক্ষেত্রে খুব গোপনে তথ্য সংগ্রহ করে মানবতার সহযোগিতা ঘরে ঘরে দরজার সামনে তাদের অজান্তেই পৌঁছে দেয়া হচ্ছে, যেন তারা বিব্রতবোধ না করেন।’
জানা যায়, ঢাকা দক্ষিণের বিভিন্ন এলাকায় অসহায় দরিদ্রদের মাঝে টানা ১০ দিন কয়েক হাজার পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণের পর গতকাল শুক্রবার (১০ এপ্রিল) রাত থেকে গোপনে মধ্যবিত্তদের মাঝে ত্রাণের এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে।
যুবলীগ মহানগর দক্ষিণের সিনিয়র সহ-সভাপতি আহাম্মদ উল্লাহ্ মধু ও নাসিরুল হাসান সজীবের নির্দেশনায় শুক্রবার রাতে বাসাবো ও সবুজবাগ এলাকায় কাসেম দ্বীপ, কামরাঙ্গীচর এলাকায় নজরুল ইসলাম বাবু, হাজারীবাগ এলাকায় আহসান উল্লাহ রাসেল ও মতিঝিল এলাকায় হাজী রফিকুল ইসলাম রুবেলের নেতৃত্ব এই ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এসব অঞ্চলে ত্রাণ বিতরণে আরও ৩২ নেতাকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবক সহযোগিতা করেন। ‘এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকব ‘ বলে জানান ত্রাণ কার্যক্রমের সমন্বয়কারী আহাম্মদ উল্লাহ্ মধু।
মধু বলেন, ‘আমরা আশা করছি- সরকারের সহযোগিতার পাশাপাশি বিত্তবানেরা মানুষের জন্য এগিয়ে আসবেন।তবে বৃহত্তর পরিসরে চিন্তা ছড়িয়ে দিতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘মনে রাখতে হবে- বর্তমান ক্রান্তিকালে শুধু হত দরিদ্ররাই নয়, মধ্যবিত্তরাও কষ্টভোগ করছেন। তারা কাউকে কিছুই বলতে পারছেন না। তাদের প্রতি সহযোগিতার হাত পৌঁছে দিতে হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘মেয়র ফজলে নূর তাপসের নির্দেশনা রয়েছে, তার অঞ্চলে কেউ যেনো খাবারের কষ্টভোগ না করেন। দুবেলা দুমুঠো হলেও খেতে পারেন। আমরা সেই লক্ষেই আমাদের সাধ্যমত কাজ করে যাচ্ছি।’
এদিকে আহাম্মদ উল্লাহ্ মধুর বাড়ি লক ডাউনে রয়েছে। এমন অবস্থায় তিনি কীভাবে কাজ করে যাচ্ছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে গড়া ডিজিটাল এই যুগে কাজটি সহজ হয়েছে।  তিনি আরো বলেন  ‘নেট ও মোবাইলে যোগাযোগ রক্ষা করে কাজ প্রতিটি অঞ্চলে সেচ্ছাসেবক গঠন করে এই কার্যক্রম পরিচালনা করছি।