উত্তরা নিউজ উত্তরা নিউজ
অনলাইন রিপোর্ট


যে কারণে উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালকে ১৭ লাখ টাকা জরিমানা !






মানুষের শরীর থেকে রক্ত বা অন্য নমুনা নিয়ে নিয়ম অনুযায়ী পরীক্ষা না করে মনগড়া প্রতিবেদন দেয়ায় রাজধানীর উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালকে ১৭ লাখ টাকা জরিমানা করেছে র‌্যাব। এমনকি কখনো কখনো পরীক্ষা না করেই প্রতিবেদন দিতো প্রতিষ্ঠানটি।

সোমবার (২৯জুলাই) দুপুরে এই অভিযান পরিচালনা করছেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম।

সারওয়ার আলম উপস্থিত গনমাধ্যমকর্মীদের জানান, ‘হাসপাতালটি নমুনা সংগ্রহের পর কোনো ধরনের পরীক্ষা নিরীক্ষা ছাড়াই রিপোর্ট দেওয়াসহ নানা অনিয়ম করছিল। এই কারণে তাদেরকে জরিমানা করা হয়েছে। অভিযান এখনও চলছে পরে বিস্তারিত জানানো হবে।’

উত্তরার আজমপুর বাসস্ট্যান্ডের কাছে রবীন্দ্র স্মরণীতে এই হাসপাতালটি বেশ নামিদামি। বিপুল সংখ্যক রোগী সেখানে চিকিৎসা নেয়। কিন্তু প্রায়ই তাদের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ পাওয়া যায়।

অভিযানে থাকা র‌্যাব-১ এর এএসপি নাজমুল হক বলেন, ‘ক্রিসেন্ট হাসপাতাল রোগীদের রোগ নির্ণয়ে রক্ত, প্রস্রাবসহ বিভিন্ন নমুনা জমা দিলেও সেগুলো নির্দিষ্ট সময়ের আগে রিপোর্ট দিচ্ছিল।’

‘কোনও পরীক্ষার জন্য ৭২ বা ৪৮ ঘণ্টা সময় লাগলেও নমুনা সংগ্রহের ১২ ঘণ্টা পরেই তৈরি করা রিপোর্ট রোগীদের সরবরাহ করার প্রমাণ মিলেছে। ফলে রোগীর শরীরে প্রকৃত চিত্র উঠে আসত না। এতে তার সঠিক চিকিৎসাও হতো না।’

এছাড়া মেয়াদোর্ত্তীর্ণ রিএজেন্ট ব্যবহার, অনুমোদনহীন ওষুধ রাখাসহ বিভিন্ন অনিয়ম পাওয়া গেছে অভিযানে। এর ফলেও পরীক্ষার সঠিক প্রতিবেদন পাওয়া যেত না।

হাসপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষায় সরকার নির্ধারিত ফির বেশি আদায় করছিল বলেও অভিযান চলাকালে দেখা যায়।

রবিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর নির্দেশনা দেয়, ডেঙ্গুর তিনটি পরীক্ষার মধ্যে দুটিতে সর্বোচ্চ পাঁচশ টাকা এবং একটির জন্য চারশ টাকা নেয়া যাবে। তবে রাজধানীর হাসপাতালগুলোর কেউ কেউ এই নির্দেশনা না মেনে অতিরিক্ত টাকা আদায় করছে।

এর আগে দুপুরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর রাজধানীর ধানমন্ডিতে পপুলার হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে। সেখানে ডেঙ্গু পরীক্ষার ফি বেশি দেখিয়ে বাড়তি টাকাটা ছাড় হিসেবে দেখাচ্ছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

কিন্তু অভিযান পরিচালনাকারী দল বলছে, এটা আইনবিরুদ্ধ। তারা ছাড় দিলে ৫০০ টাকা থেকে দিতে হবে। বেশি বিল দেখিয়ে ছাড় দিয়ে তারা কৃতিত্ব নিচ্ছে।