যশোরে বুলডোজার দিয়ে রেলওয়ের ৫ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ - ০৮:৩০:১১ অপরাহ্ন

যশোরের অভয়নগর উপজেলার শিল্প ও বাণিজ্য শহর নওয়াপাড়ায় বাংলাদেশ রেলওয়ের সম্পত্তিতে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের অভিযান।

সোমবার সকাল থেকে রের স্টিশনের পাশ থেকে এ অভিযান শুরু হয়েছে। অবৈধ স্থাপনা সরানোর রেলকর্তৃপক্ষের বেঁধে দেয়া সময়সীমা শেষ হওয়ার পর এই উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েনের মাধ্যমে দিনব্যাপী এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়।

সংশ্লিষ্টসূত্র থেকে জানা গেছে, রেলকর্তৃপক্ষ অবৈধ স্থাপনাকারীদের দুদফা সময় দিয়ে ব্যাপক মাইকিং করে স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার জন্য গত রোববার পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয়। ওই সময়ের মধ্যে স্থাপনা না সরানোর কারণে সোমবার সকাল থেকে নওয়াপাড়া রেলস্টেশন এলাকা থেকে নূরবাগ রেলগেট এলাকা পর্যন্ত, বেঙ্গলগেট এলাকা, গরুহাটা এলাকার প্রায় ৫শতাধিক দোকানপাট, বসতঘর, হোটেল-রেঁস্তোরাসহ নানাবিধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

এ সময় নওয়াপাড়া পৌরসভার ইজারা দেয়া গরুহাটটি রেলকর্তৃপক্ষ নতুন করে উপস্থিত ইজারাদারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ডাকদাতাকে ১৪মাসের জন্য ২লাখ ১২হাজার টাকায় ইজারা প্রদান করেন। এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন রেলওয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও বিভাগীয় ভূসম্পত্তি কর্মকর্তা মো. নুরুজ্জামান।

এ সময় যশোর জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুফল চন্দ্র গোলাদারসহ রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অভিযান চলাকালে দখলকারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অনেককে দিকবিদিক ছোটাছুটি করতে এবং নিজ নিজ দায়িত্বে মালামাল ও স্থাপনা সরিয়ে ফেলতে দেখা যায়।

উচ্ছেদের বিষয়ে বিভাগীয় ভূসম্পত্তি কর্মকর্তা মো. নুরুজ্জামান জানান- রেলওয়ের সম্পত্তি অবৈধ দখলদারদের কাছ থেকে মুক্ত করে সরকারের রাজস্ব আয় বাড়ানোর চেষ্টা চলছে। দখলদাররা যতই শক্তিশালী হোক না কেন, উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত রেখে রেলওয়ের সম্পত্তি দখলমুক্ত করা হবে।