মেরিল্যান্ড ইতিহাসের বৃহত্তম তামাক চোরাচালানিতে তিন বাংলাদেশী অভিযুক্ত!


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ০২ ডিসেম্বর ২০১৯ - ১০:৪৪:৫৪ পূর্বাহ্ন

এনাপলিস, মেরিল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র : ইতিহাসের বৃহত্তর তামাক চোরাচালানির জন্য যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড রাজ্যে তিন বাংলাদেশীকে অভিযুক্ত করে আটক করা হয়েছে। এরা হলেন মেহবুব চৌধুরী (৩৭), মঞ্জুরুল ইসলাম (২৯) ও আবদুল করিম (১৮)। গত ৫ নভেম্বর মেরিল্যান্ডের বাল্টিমোর নর্থ ইষ্ট এ পুলিশ, এফবিআই, এটিএফ সহ বিভিন্ন আইনশৃংখলা বাহিনির সমন্বয়ে পরিচালিত এই অভিযানে তিন বাংলাদেশী সহ প্রায় হাফ মিলিয়ন ডলারের তামাক ও সিগারেট উদ্ধার করা হয় যা ইতিহাসের সর্ববৃহৎ চোরাচালানি বলে উল্লেখ করেছেন মেরিল্যান্ড তামাক নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা পিটার ফ্রাঙ্ক।
প্রিন্স জর্জের কাউন্টি এবং বাল্টিমোর সিটির একাধিক স্পটে ৫ নভেম্বর ভোরে এই অভিযান পরিচালিলত হয়। বছরব্যাপী অনুসন্ধান আর তদন্তের পর আইনশৃংখলা বাহিনি এই অভিযান পরিচালনা করে এবং হাজার হাজার কার্টন অবিকৃত তামাকজাত পণ্য জব্দ করে। ক্যাপিটল হাইটসের ৩৭ বছর বয়সী মাহবুব চৌধুরী এবং কলম্বিয়ার ২৯ বছর বয়সী মনজুরুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে এবং তাদের বিরুদ্ধে অবৈধ ভাবে তামাক সিগারেট গুদামজাত ও বিক্রির অভিযোগ আনে। বর্তমানে এই দুজনকে মেরিল্যান্ডের বৃহত্তর তামাক পাচার সিন্ডিকেটের অংশ বলে মনে করছে আইনশৃংখলা বাহিনি।
পুলিশ জানায়, চৌধুরী এবং ইসলাম রাজ্যে আনট্যাক্সড তামাক পাচার এবং সংরক্ষণ করে। পরে পণ্যগুলি খুচরা তামাক স্টোরগুলিতে বিতরণ করে যেখানে অব্যবহৃত সামগ্রীগুলি জনসাধারণের কাছে বিক্রি করা হয়েছিল। নর্থ ইস্ট বাল্টিমোরের টোব্যাকো এবং কনভেনিয়েন্স স্টোর পরিদর্শনকালে এজেন্টরা বাল্টিমোরের ১৮ বছরের স্টোর ক্লার্ক আবদুল করিম রুবেলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। পাইকার ছাড়া অন্যের কাছ থেকে কেনা ওটিপি বিক্রয়, আনট্যাক্সড ওটিপি দখল এবং নিয়মবহির্ভূত সিগারেটের বিক্রয় ও অপরাধের অপকর্মের অভিযোগে আবদুল করিমকে অভিযুক্ত করা হয়।