মুসলিম বিদ্বেষী বক্তব্য দেয়ায় উগ্রবাদী দুই নেতার নির্বাচনী প্রতারণা বন্ধ

সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষপূর্ণ মন্তব্য করায় উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের নির্বাচনী প্রচারণা আগামী তিন দিন বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির নির্বাচন কমিশন।

একইসঙ্গে কমিশন উস্কানিমূলক মন্তব্যের কারণে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তণ মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতীর প্রচারণাও ৪৮ ঘণ্টার জন্য নিষিদ্ধ করেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি সোমবার জানায়, নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্ত প্রকাশ্যে আসার আগে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট তাদের কাছে এ-সংক্রান্ত উস্কানি ও বিদ্বেষের কারণ জানতে চেয়েছেন।

নির্বাচন কমিশন নির্দেশ দিয়েছে, মঙ্গলবার  ভোর ৬টা থেকে আগামী ৭২ ঘণ্টা প্রচারণা চালাতে পারবেন না যোগী আদিত্যনাথ। একইভাবে মায়াবতীও ৪৮ ঘণ্টা প্রচারণা চালাতে পারবেন না।

‘মোদিজি কি সেনা’ (মোদির সৈন্য) মন্তব্যের জন্য সমালোচিত হয়েছেন যোগী আদিত্যনাথ। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে বলেছিলেন, কংগ্রেসের লোকেরা সন্ত্রাসবাদীদের বিরিয়ানি খাওয়াতো। আর মোদির সৈন্যরা সন্ত্রাসবাদীদের বাড়িতে ঢুকে তাদের নিকেশ করে।

মায়াবতীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি আলী এবং বজরং বলি সম্পর্কে যে বক্তব্য রেখেছেন জনমানসে, ভোটে তার বিরূপ প্রতিক্রিয়া পড়তে পারে।

কলকাতার আনন্দবাজার পত্রিকা খবর দিয়েছে, ভোটের মৌসুমে রাজনীতিকদের বিদ্বেষপূর্ণ মন্তব্য নিয়ে সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা হয়। তা নিয়ে সোমবার সকালেই নির্বাচন কমিশনকে তিরস্কার করেন শীর্ষ আদালত।

এরপর ওইদিনই, যোগী আদিত্যনাথ আর মায়াবতীর প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে কমিশন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *