মানুষের ভালোবাসায় রাষ্ট্র ক্ষমতার শীর্ষে পৌছানো জাতীয় পার্টির জন্য সময়ের ব্যাপার মাত্র

-গোলাম মোহাম্মদ কাদের

» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ - ০৮:২৬:৪৬ অপরাহ্ন

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, আগামী দিনের রাজনীতিতে জাতীয় পার্টি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। গণমানুষের আস্থা অর্জন করতে কাজ করছে জাতীয় পার্টি।

মানুষের ভালোবাসায় রাষ্ট্র ক্ষমতার শীর্ষে পৌছানো জাতীয় পার্টির জন্য সময়ের ব্যাপার মাত্র। তিনি বলেন, বাংলাদেশের বড় বড় রাজনৈতিক দলগুলো ব্যক্তি কেন্দ্রীক। শীর্ষ নেতার অবর্তমানে রাজনৈতিক দলগুলো ঘাত-প্রতিঘাতে বিলীন হয়ে যায়। কিন্তু পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের চলে যাওয়ার পরে জাতীয় পার্টি ঘুরে দাঁড়িয়েছে। সবার প্রচেষ্টায় জাতীয় পার্টি এখন ঐক্যবদ্ধ এবং শক্তিশালী।

আজ দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী অফিস মিলনায়তনে গোলাম মোহাম্মদ কাদের-এর শুভ জন্মদিন উপলক্ষ্যে আয়োজিত শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে গোলাম মোহাম্মদ কাদের এ কথা বলেন। এসময় গোলাম মোহাম্মদ বলেন, নিঃস্বার্থভাবে মানুষের জন্য কাজ করলে অর্থ-বিত্তে মূল্যায়ন আশা করা ঠিক নয়। মানুষের অকৃত্রিম ভালোবাসাই রাজনীতিবিদদের কাম্য হওয়া উচিত।

তিনি বলেন, আমি মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি, জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত এই ভালোবাসার মূল্য দিতে চাই। তিনি বলেন, মানুষের আস্থা অর্জন করে দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করতে চাই। দেশের মানুষের কল্যাণে জীবন উৎসর্গ করার ঘোষনাও দেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের। নিজের জন্মদিনের আয়োজনে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মাগফিরাত কামনায় দেশবাসীর দোয়া চেয়েছেন। দলকে আরো শক্তিশালী করতে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের প্রতি আহবান জানান গোলাম মোহাম্মদ কাদের।

অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির মহাসচিব ও বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি বলেন, পল্লীবন্ধু যখন জেলে তখন চাকরী ছেড়ে গোলাম মোহাম্মদ কাদের রাজনীতিতে এসে পল্লীন্ধুর মুক্তি আন্দোলন বেগবান করেন। তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ আছে, জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ থাকবে। আমরা সকলে মিলে জাতীয় পার্টির ঐক্য ধরে রাখবো।

তিনি বলেন, আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে জাতীয় পার্টির ক্ষমতায় যাওয়া সুনিশ্চিত। এর আগে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের পার্টির শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দকে সঙ্গে নিয়ে ৭২ পাউন্ড জন্মদিনের কেক কাটেন। এসময় স্ত্রী শেরিফা কাদের, কো-চেয়ারম্যান জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু, কো-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি, পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়, সোলায়মান আলম শেঠ, রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, আলমগীর সিকদার লোটন, জহিরুল ইসলাম জহির ও শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ পাশে ছিলেন।

সকাল থেকেই জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী অফিস নেতা-কর্মীদের ভীড়ে জমজমাট ছিলো। সবাই ফুল নিয়ে অপেক্ষা করছিলেন প্রিয় চেয়ারম্যান-এর জন্য। বেলা ১১টার দিকে চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের সঙ্গে স্ত্রী শেরিফা কাদের-কে নিয়ে বনানী অফিসে পৌছলে উচ্ছসিত নেতা-কর্মীরা মুহুর্মুহু শ্লোগানে উৎসব মুখর করে তোলেন পরিবেশ। এরপরে লাইন দিয়ে নেতা-কর্মীরা ফুলের শুভেচ্ছায় সিক্ত করেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরকে। চেয়ারম্যানও উপস্থিত নেতা-কর্মীদের শুভেচ্ছা জানান।

উপস্থিত ছিলেন মাননীয় চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা হাসিবুল ইসলাম জয়, মনিরুল ইসলাম মিলন, ড. নুরুল আজহার, ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, আদেলুর রহমান আদেল এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসহাক ভূঁইয়া, আশরাফুজ্জামান খান, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল খায়ের, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য মাহমুদ আলম, সমরেশ মন্ডল মানিক, কেন্দ্রীয় নেতা জাকির হোসেন মৃধা, মীর নাজিম উদ্দিন, মাওলানা খলিলুর রহমান।