মাদকের মামলায় সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে


» আশরাফুল ইসলাম | ডেস্ক এডিটর | | সর্বশেষ আপডেট: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯ - ০৮:৫৯:০২ অপরাহ্ন

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দায়ের করা মামলায় আজ অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসায়ের অভিযুক্ত কিংপিন যুবলীগের সাবেক নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে।

সম্রাটের সহযোগী এনামুল হক আরমানের বিরুদ্ধেও একই মামলা করা হয়েছিল।র‌্যাব উপ-পরিদর্শক আবদুল হালিম এবং মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছিলেন, যাতে ২০ জনকে প্রসিকিউশন সাক্ষী হিসাবে দেখানো হয়েছিল।

এর আগে ১৫ ই অক্টোবর অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দায়ের করা মামলায় সম্রাটকে ১০ দিনের এবং রিমান্ডের মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছিল।

সম্রাটের বিরুদ্ধে তার কাকরাইল অফিসে পাঁচটি গুলি সহ একটি পিস্তল রাখার জন্য মামলা করা হয়েছিল।অবৈধ সম্পদ অর্জনের জন্য দায়ের করা মামলায় তাকেও রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ যুবলীগের তত্কালীন সভাপতি সম্রাট এবং তার ঘনিষ্ঠ সহযোগী কুমিল্লা থেকে একই ইউনিয়নের প্রাক্তন সহ-সভাপতি এনামুল হক আরমানকে ভারতীয় সীমান্তের নিকটে একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করে।

সম্রাটকে তখন রাজধানীতে আনা হয় এবং এলিট ফোর্স বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করে যেখানে যুবলীগ নেতা হয় থাকতেন অথবা রাজনৈতিক বা ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতেন।

রব সম্রাটকে কাকরাইল এলাকায় তার রাজনৈতিক কার্যালয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন, যেখানে ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে ক্র্যাকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে তিনি অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে।

অফিসে পাঁচ ঘণ্টা তল্লাশির পরে অভিজাত বাহিনী এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছে যে, এটি মানুষকে নির্যাতনের জন্য ব্যবহৃত দুটি বৈদ্যুতিক মেশিন, পাঁচটি গুলি সহ একটি পিস্তল, দুটি কাবাড়ার লুকোচুরি, ১,১৬০ পিস ইয়াবা এবং ১৯বোতল বিদেশী মদ উদ্ধার করেছে। সেখান থেকে.

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার আলমের নেতৃত্বে একটি রব ভ্রাম্যমাণ আদালত সম্রাটকে বন্য পশুর গোপন রাখার দায়ে ছয় মাসের কারাদন্ড এবং অবৈধ মদ রাখার দায়ে আরও ছয় মাসের কারাদন্ড দিয়েছে।

পরের দিন র‌্যাব তার বিরুদ্ধে রমনা থানায় দুটি মামলা দায়ের করেন অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে।

সূত্র এবং গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, সম্রাট তার কয়েক শতাধিক সমর্থকসহ ১৮ সেপ্টেম্বর ড্রাইভিং শুরু হওয়ার পরপরই তাঁর কাকরাইল অফিসে খনন করেছিলেন।