ভালো পরিকল্পনার তাগিদ মুশফিকের

করোনা-পরবর্তী ক্রিকেট

» উত্তরা নিউজ | অনলাইন রিপোর্ট | সর্বশেষ আপডেট: ০৮ মে ২০২০ - ১১:০৬:০৬ পূর্বাহ্ন

করোনা ভাইরাসের ধাক্কায় এলোমেলো হয়ে গেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সূচি। করোনার থাবায় একের পর এক সিরিজ স্থগিত হয়ে গেছে। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ, ওয়ানডে লিগের সূচি ঠিক থাকছে না। টি-২০ বিশ্বকাপও হুমকির মুখে। করোনার গ্রাস মুক্ত হওয়ার পর কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে ক্রিকেট খেলুড়ে দেশগুলো ও আইসিসিকে।

করোনা পুরো ক্রিকেট বিশ্বকেই নাড়িয়ে দিয়েছে উল্লেখ করে অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার বলেছেন, ‘দেখেন এটা শুধু আমাদের না, এটা বিশ্ব ক্রিকেটকেই নতুন অবস্থানে নেবে। এটা কেউ আশাও করেনি। একইভাবে আমাদের আন্তর্জাতিক সূচি হয়তো বা এখন একটু কঠিন হয়ে যাবে। ব্রেক একটু কম হবে, সিরিজ বাই সিরিজ একটু তাড়াতাড়ি হবে।’

চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ভালো পরিকল্পনা চান মুশফিক। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘আমার মনে হয় যে, আমাদের অবশ্যই একটা ভালো পরিকল্পনা করা উচিত। কারণ যখন আমরা নিয়মিত প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ক্রিকেট খেলতে থাকব তখন ইনজুরির একটা শঙ্কা থাকে। এটা শুরু হওয়ার আগে যদি হয় ভালো, আমরা যদি ১৫-২০ দিন বা এক মাসের একটা ক্যাম্প করতে পারি। যেখানে আমাদের স্কিলগুলো, ফিটনেস যেটা আমরা করতে পারছি না—সেটা যেন উন্নতি করতে পারি। এটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।’

ইতিমধ্যে করোনার কারণে বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর, আয়ারল্যান্ড সফর, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হোম সিরিজ স্থগিত হয়ে গেছে। করোনা-পরবর্তী সময়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আদর্শ প্রস্তুতি হতে পারে বলে বিশ্বাস করেন মুশফিক। তিনি বলেছেন, ‘যদি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ শুরু হয় তাহলে অবশ্যই খুব ভালো একটা দিক। যেখানে খেলে আমরা টপ লেভেলের ক্রিকেটের জন্য নিজেদের তৈরি করতে পারব। ওখানে খেললে আমাদের প্রতিযোগিতার মনোভাবের অনুশীলনও হয়ে যাবে।’ তবে ক্রিকেট মাঠে গড়ানোকেই এখন বড়ো চ্যালেঞ্জ মানছেন তিনি।

কয়েক দিন পরই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৫ বছর পূর্ণ হবে মুশফিকের। ২০০৫ সালে লর্ডসে টেস্ট অভিষেক হওয়া এই ক্রিকেটার মনে করেন, টেস্টে দল হিসেবে আরো অর্জন করা বাকি রয়েছে বাংলাদেশের।

গতকাল তিনি বলেছেন, ‘টেস্ট র্যাংকিংয়ের কথা যদি বলি, দল হিসেবে আমাদের অনেক কিছু অর্জন করা বাকি আছে। গত ২০ বছর আমরা সেভাবে অর্জন করতে পারিনি। আমাদের মূল ফোকাস এখন বিদেশে ভালো করা এবং আমি মনে করি, টেস্টে আমাদের সেরা ছয়ের মধ্যে আসার সামর্থ্য আছে এবং সেটা খুব দ্রুতই শুরু করা উচিত।’