বিদ্রোহীদের অপ-প্রচারে বিব্রত নন দলীয় প্রার্থী রুনা


» শিপার মাহমুদ (জুম্মান) | স্টাফ রিপোর্টার, উত্তরা নিউজ | সর্বশেষ আপডেট: ১৯ জানুয়ারি ২০২০ - ০৯:২৫:৫৪ অপরাহ্ন

আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চলছে সকল কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা, কাউন্সিলর প্রার্থীদের পাশাপাশি ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় অংশ গ্রহণ করেছেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর প্রার্থীরাও। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) ৪৩, ৪৪ ও ৪৫ নং ওয়াডে (সাধারণ ১৫) আসনে মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যেও চলছে প্রচারণার প্রতিযোগিতা।

ডিএনসিসি ৪৩, ৪৪ ও ৪৫ নং ওয়ার্ডে (সাধারণ ১৫) আসনে নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ‘আনারস প্রতীকে’ প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন বর্তমান কাউন্সিলর সোনিয়া সুলতানা (রুনা)। উত্তরা নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে সোনিয়া সুলতানা রুনা বলেন, ‘এলাকার জনগণের সহযোগিতা মধ্য দিয়ে নির্বাচনের মাঠে আমি কাজ করে যাচ্ছি। তবে আমার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যারা রয়েছেন বিএনপি, জাতীয় পার্টি, এছাড়াও দু’জন বাংলাদেশ যুব মহিলা লীগের নেত্রী; বিদ্রোহী প্রাথী হিসেবে আমার প্রতিদ্বদি¦তা করছেন। তারা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে শুধু প্রতিদ্বন্দ্বিতা নয়; প্রতিনিয়ত আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে এবং আমার নির্বাচনী কাজে বিভিন্নভাবে ব্যাঘাত ঘটানোর চেষ্ঠা চালাচ্ছে। তারা বলে বেড়াচ্ছেন আমি নাকি দল থেকে মনোনয়ন পায়নি, যেটা নিতান্তই একটি মিথ্যা অপপ্রচার। আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই। কেননা আমি একমাত্র (ডিএনসিসি) ৪৩, ৪৪ ও ৪৫ নং ওয়ার্ডে (সাধারণ ১৫) আসনে নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ‘আনারস প্রতীকে’ নির্বাচন করছি।

সোনিয়া সুলতানা রুনা বলেন ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যখন গণভবনে আমাদের সকল নেতাকর্মীদের নিয়ে বসেছিলেন, তখন আমরা সকলেই সেদিন গণভবনে নেত্রীকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম দল থেকে যাকে মনোনয়ন দিবে আমরা সকলেই তাঁর হয়ে কাজ করব। দল থেকে যখন আমাকে মনোনয়ন দেয়া হলো তখন আমি আশা করছিলাম; দলের নেতাকর্মীদের থেকে আমি সহযোগিতা পাব, তাদের নিয়ে আমার নির্বাচনী কাজ শুরু করব। কিন্তু আমি দেখলাম আমার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আমার দলের দু’জন কর্মী লেগে গেছে। এ সময় দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, ‘তারা আমাকে বিভিন্নভাবে হেনেস্থা করছেন।’

তবে, বিদ্রোহী প্রার্থীদের এসব অপ-প্রচারে মোটেও বিব্রত নন বলে জানিয়েছেন এই নারী কাউন্সিলর প্রার্থী। ভোটের মাঠে জনগণ তাকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি।