উত্তরা নিউজ উত্তরা নিউজ
অনলাইন রিপোর্ট


বাবা তুমি কি জানো?

বাবা দিবসের আবেগঘন গল্প




তোমাকে প্রিয় বলতে ইচ্ছে করে না, তবুও বলি কারণ তুমি ই আমার জন্মদাতা পিতা। তুমি শুধু আমাকে জন্ম দিয়েই তোমার কর্তব্য শেষ করেছ তা নয়। আমার জীবনের ১৫টি বছর কাটিয়েছি তোমার সাথে,তোমার হাসির পুরোটা অংশ না দেখার আগেই আমাদের ছেড়ে চলে গিয়েছ। কত সুখে ই না ছিলাম আমরা, কত সুন্দর ছিল আমাদের সাজানো বাগান। কেন আমাদের অথৈ সাগরে ফেলে চলে গেলে দূরে বাবা? বাবা তুমি কি জানো? যে সন্তানের বাবা নেই পৃথিবীতে তার কোন মূল্য নেই ? বাবা তুমি কি জানো ? নিজের পরিচয় টা তুলে ধরতে গেলে এক কথায় বলে দিতে হয় আমায় “বাবা নেই” কি করবো বাবা,যদি বলি বাবা আছে? তাহলে আরও প্রশ্ন আসবে নিজের পরিচয় তুলে ধরতে আরও একটা গল্প বলতে হবে।

তাই এক কথায় মিথ্যে বলে দেই ” বাবা নেই” ! মিথ্যে শান্তনা দিয়ে হয়তো কিছু গল্প এড়িয়ে যাওয়ায় যায় ! কিন্তু মন কে বুঝানো যায় না ! “বাবা” সবাই কত অধিকার খাটিয়ে বলে আমার বাবা ! ঝাপটে পরে বাবার বুকে । বাবা কেউ ঝাপটে যখন বাবার বুকে পরে দেখলেই বুক টা কেমন করে উঠে। বাবা যখন বুকে নিয়ে গল্প বলে তখন সুখের সাগরে ভাসিয়ে যাই। একটু ব্যথা অনুভব করি।সেই কৈশোর থেকে দেখে আসছি সবার বাবা ঘরে ফিরে আসার সময় কত কিছু নিয়ে আসে দেখলে’ই মন টা কেমন করে উঠত।মন বাবা বাবা করে চিৎকার করত কিন্তু আমার অবুঝ মনের চিৎকার তোমার কান পর্যন্ত কখনো যায়নি বাবা। তখন খুব কষ্ট হত,আমার অবুঝ মন টা তোমার উপর অভিমান করত ,আর মনে মনে বলতাম বাবা আসলে আমি কক্ষনো কথা বলবা না। জানো বাবা, তখন আমার অবুঝ মন বলে উঠত বাবা মানে ই খারাপ কেউ !

কষ্ট দেয় এমন কোন শব্দের নাম হয়তো “বাবা” কিন্তু বাবা শব্দ টা যখন অনেকের কাছে অনেক প্রিয় তখন আমার অবুঝ মন কে কি করে বুঝাই ? যে আমি বাবা হারা! প্রিয় সেই বাবা নামের স্বাদ টা আমার পাওয়া হয়নি। বাবা জানো আজ আমি অনেক বড় হয়েছি বুঝতে শিখেছি।মানুষ কে বুঝাতে শিখেছি,ভালো মন্দের পার্থক্য বুঝি কিন্তু শুধু বুঝি না “বাবার আদর কেমন” বাবার কোলে ঘুমানোর সুখ কেমন ? বাবা তুমি হয়তো আমাদের ছেড়ে চলে গিয়েছ কিন্তু তোমাকে কখনো ই ছাড়তে পারিনি। অনেক বার চেয়েছিলাম তোমাকে দূরে ঠেলে দেব,কিন্তু পারিনি। আমার বাহিরের জগত এবং ভেতরে ২ জায়গা ই তোমার সমান অবস্থান ! আমার নামের সাথে ছোট করে তোমার নাম টাও মিশে দিয়েছে।

ওরা বলে অস্বীকার করা যাবে না এটাই তোমার আসল পরিচয় ! বাবা তোমার আদর অনেকের মাঝে খুঁজি কিন্তু পায় না। কিভাবে পাবো বলো সেই সময়টা অনেক আগেই হারিয়ে ফেলছি, ,,৷ “বাবা” আমি বুঝতে শিখেছি , তোমাকে ছাড়াই আমি এখন নিজের পায়ে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি ! এখন কি কারো করুণা ভালো লাগে বাবা ? বাবা জানো, যার বাবা নেই সে শূন্যে বাস করে ? তার পায়ের নিচে এক টুকরো মাটি নেই ! আমিও তেমন এক শূন্য “সারা পৃথিবী যখন বাবা বাবা করে চিৎকার করে ডাকে ! আমি বুকে যন্ত্রণা চেপে রাখা শূন্য আমি বাবা ছাড়া শূন্য বাবার আদর ছাড়া শূন্য হাসি মুখে বাবার ঘরে না ফেরা শূন্য প্রতিরাতে তোমাকে অনেক বেশি মনে পরে নির্ঘুম রাতে আর কত চোখের পানি বালিশ চাপা দিয়ে রাখা যায় বলো তুমি।

বাবা এইগুলা লেখতে অঝরে পানি পরছে আর একটু বেশি কষ্ট হয়ছে৷ প্রতি ঈদ আসলেই তোমার জন্য অঝরে চোখে পানি আসে তাই আজকে তোমাকে অনেক বেশি মনে পরছে তাই লিখে দিলাম তোমার নামে মন খুলে। এই বাবা দিবসে তোমাকে নিয়ে আমার অনেক লেখার ইচ্ছে ছিল,আজ শুধু তোমার আবেগটা নিয়ে কথা বলেছি,তোমাকে আমি খুব মিস করি,তুমি সবসময় আমার কাছে প্রিয় বাবা হয়ে থাকবে।

আল্লাহ তায়ালা আপনাকে জান্নাতের উঁচু মাকাম দান করুক আমীন।

লেখক- পারভেজ আটিয়া, সংবাদকর্মী।