উত্তরা নিউজ উত্তরা নিউজ
অনলাইন রিপোর্ট


বাংলালিংক মডেলগার্লরা কেমন আছে?

বাংলালিংক মডেলগার্লরা




বাংলালিংকের দেশ সিরিজের বিজ্ঞাপনগুলো অল্পতেই সবার নজড় কেড়েছে। ওই বিজ্ঞাপন অনেক সাড়া পেয়েছে কারণ এ বিজ্ঞাপনগুলোতে ছিল নাচ, গান, অনেকটা চলচ্চিত্রের রঙিন পর্দার মত। সাথে তো ছিল অনেক সুন্দর চেহারার মডেলগার্ল। আবার অনেকেই এই বিজ্ঞাপন দিয়ে নিজের ক্যারিয়ারাট আরও রঙিন করে নিয়েছিলেন।

এদের মধ্যে কেউ কেউ মিডিয়া ছেড়ে চলেও গেছেন। যদিও কেউ থেকে থাকে তাহলে তারা খুব বেশি একটা কাজ করেনা। সেই সব মডেলগার্লদের মধ্যে অন্ন্যতম হচ্ছে, তিন্নি, মোনালিসা, শখ, মেহজাবিন, বিন্দু ও সারিকা। বর্তমানে বিজ্ঞাপন গুলো টেলিভিশনে প্রচার হচ্ছে না। একমাত্র ইউটিউব’র সারিতে দেখতে পাওয়া যায়।

পাঠকের জন্য সেই বিজ্ঞাপনগুলো ও বিজ্ঞাপনের মেয়ে মডেলদের নিয়ে আজকের খবর প্রকাশ। নিয়তি তাদেরকে যত দূরেই নিয়ে যাক না কেনো সবাই সবার মত ভালো আছে। ঠিক যেমন বাংলালিংক দেশের বিজ্ঞাপনের একটি ডায়লোগ ছিল। ‘আমরা ভাল আছি, আপনি ভাল আছেন তো? কিন্তু সত্যিই তারা ভালো আছেন কী?

তিন্নি: তিনিই প্রথম বাংলালিংক দেশের বিজ্ঞাপন দিয়ে চলে আসেন মানুষের মুখে মুখে। তিনি কিন্তু এখন আর মিডিয়াতে আসেন না। ব্যক্তিগত কারণে অনেকটা বছর ধরে হয়ে গেল মিডিয়াতে তিনি নেই।

মোনালিসা: প্রেম, বিয়ে অতঃপর আমেরিকা। তারপর থেকেই তিনিও মিডিয়া ছেড়ে চলে যান। তিনি অনেক গুলো বিজ্ঞাপন করেছিলেন সেই সময়ে তার মধ্যে বাংলালিংকের বিজ্ঞাপনগুলো ছিল জনপ্রিয়। তিনিও আর মিডিয়াতে ফিরবেন না বলে আশা করা যায়।

সারিকা: অনেক পাগলামী করার পর শেষে তার প্রেমিকেই বিয়ে করে এখন এক কন্যা সন্তানের মা। মিডিয়াতে তাকেও আর দেখা যায় না। আর আদৌ ফিরবেন কিনা তাও অনিশ্চিত। তিনিও অনেকগুলো বিজ্ঞাপন করে হিট লিস্টে চলে আসেন।

বিন্দু: তিনিও স্বামী সংসার নিয়ে অনেক ব্যস্ত। রীতিমত মিডিয়াতে আর কাজ করবেন না বলেই বেশ জোড়েসোড়ে আওয়াজ দিয়ে সড়ে দাঁড়িয়েছেন। তিনি একটি মাত্র বিজ্ঞাপন করেছিলেন বাংলালিংকের। স্বামী সংসার ঠিক রেখে হয়তো ফিরে আসতে পারনে মিডিয়াতে। তবে বিন্দুর জন্য তার ভক্তের করতে হবে অপেক্ষা।

মেহজাবিন: তিনি এখনও রয়েছেন মিডিয়াতে। তবে বেছে বেছে খুব কম কাজ করেছেন। ২০০৯ সালের লাক্স সুন্দরী হয়ে রীতিমত হইচই ফেলে দিয়েছিলেন তিনি। এরপর তিনিও অনেক গুলো বাংলালিংকের বিজ্ঞাপন করে লাইমলাইটে আসেন। মেহজাবিন কিন্তু এখনও মাঝে মাঝে বাংলালিংকের বিজ্ঞাপন করেন।

আনিকা কবির শখ: তিনিও বর্তমানে মিডিয়াতে নেই। তবে তার নামে মাঝে মাঝে শুনতে পাওয়া যায় পরিচালকদের সিডিউল ফাঁসানো নিয়ে। তিনিও বাংলালিংকের অনেকগুলো বিজ্ঞাপন করে তখনখার সময়ে বেশ আলেচানায় আসেন। অভিনেতা নিলয়ের সঙে ডির্ভোসের পর তিনি আর মিডিয়াতে নিয়মিত নেই।

সব মিলিয়ে বলা যায়, বাংলালিংক নিজেদের ব্যবসার ক্ষেত্রে এই মেয়েদেরকে বিজ্ঞাপনে ব্যবহার করেছে। নিজেদের ক্যারিয়ার গড়ার চেষ্টায় এই মডেলগার্লরা এক বুক স্বপ্ন নিয়ে এসেছিল এই রঙ্গিন ভূবনে। আজ হয়তো মনে থাকা স্বপ্ন নিয়ে চলে গেছে অনেকেই।