বাংলাদেশের প্রশংসায় বিশ্বব্যাংক


» উত্তরা নিউজ | অনলাইন রিপোর্ট | সর্বশেষ আপডেট: ০৩ নভেম্বর ২০১৯ - ০৬:৫২:৩৯ অপরাহ্ন

বিনিয়োগকারী আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্রমাগত প্রশংসা করেই চলেছে। আজ (রোববার) দুপুরেও বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ভূয়শী প্রশংসা করেছে বিশ্বব্যাংক। রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অবস্থিত সোনারগাঁও হোটেলে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বৈঠকে এই প্রশংসা করে বিশ্বব্যাংকের শীর্ষ পর্যায়ের এক প্রতিনিধি দল। এর আগেও সম্প্রতি একই জায়গায় অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে প্রশংসা করে বিশ্বব্যাংক।

রোববার বৈঠক শেষে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশ ও ভুটানে নিযুক্ত কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন এবং আলবেনিয়া, গ্রিস, ইতালি, মালটা, পর্তুগাল, সান মেরিনো ও তিমোর লেস্তায় নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ প্যাট্রিজিও প্যাগানো।

কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন বলেন, ‘বাংলাদেশ নিজেই ব্যতিক্রমী হয়ে উঠবে আগামীতে। কারণ কাগজে বাংলাদেশের যে অর্জন, সেটার বাস্তবতাও রয়েছে।’

এ সময় প্যাট্রিজিও প্যাগানো বলেন, ‘বিশ্বব্যাংক গ্রুপের একটি প্রতিনিধি দল আমরা প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে এসেছি। আমরা অবাক হয়েছি যে, বিশ্বে দ্রুত উন্নয়ন করা দেশগুলোর একটিতে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ। বিশেষ করে দারিদ্র্য দূরীকরণে বাংলাদেশের অর্জন উল্লেখ করার মতো। দারিদ্র্য দূর করা বিশ্বব্যাংকের প্রধান কাজ। তাই বাংলাদেশের এই অর্জনে আমরা খুশি।’

তারপরও বাংলাদেশের বড় একটা অংশ দারিদ্র্যের মধ্যে বাস করছে। দেশের সব মানুষই উপকারভোগী হবে এমন প্রকল্পে বিশ্বব্যাংক বিনিয়োগ করতে চায় বলেও জানান তিনি।

প্যাট্রিজিও প্যাগানো বলেন, ‘উন্নয়নে দেশের সব মানুষকে সম্পৃক্ত করতে হবে। উন্নয়ন দীর্ঘস্থায়ী করতে হলে বেসরকারি খাতেরও এ ক্ষেত্রে সম্পৃক্ত হওয়া দরকার। বেসরকারি খাতও ভালো কাজ করে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আপনাদের উচিত নিজেদের জনগণের জন্য বিনিয়োগ করা। বিনিয়োগ বলতে শুধু ভৌত অবকাঠামোকে নির্মাণ করাকেই বোঝায় না, মানবসম্পদ উন্নয়নকেও বোঝায়। মানবসম্পদ বলতে মানুসের স্বাস্থ্য, শিক্ষাসহ বিভিন্ন বিষয়কে ইঙ্গিত করে। বাংলাদেশ এ ক্ষেত্রে ইতোমধ্যে অনেক কাজ করছে।’

অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল বলেন, আমরা তাদের সহযোগিতার কথা স্বীকার করি। আমরা বিশ্বাস করি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে সমৃদ্ধ, শান্তির, বৈষম্যহীন দেশের স্বপ্ন দেখিছিলেন, আমাদের সেই লক্ষ্য অর্জনে তারা আমাদেরকে সহযোগিতা করবে।’

বৈঠকে বিশ্বব্যাংক ও বাংলাদেশের শীর্ষ পর্যায়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

উত্তরা নিউজ/এস,এম,জেড