বছরে দুই হাজার কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা আয় করছে মেরিন একাডেমির গ্রাজুয়েটরা

মেরিন একাডেমি থেকে পাশ করা গ্রাজুয়েটগণ (জাহাজের ক্যাপ্টেন ও চিফ ইঞ্জিনিয়ার) দেশি ও বিদেশি জাহাজে কর্মরত থেকে প্রতি বছর প্রায় দুই হাজার কোটি টাকার বৈদেশিক আয় করছে। যা দেশের দারিদ্র্য বিমোচনসহ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে উত্থাপিত প্রতিবেদনে এতথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

আজ সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটি সভাপতি মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম, বীর উত্তম। বৈঠকে কমিটির সদস্য নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহ্মুদ চৌধুরী, মো. মজাহারুল হক প্রধান, মাহফুজুর রহমান, এম আব্দুল লতিফ, ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, মো. আছলাম হোসেন সওদাগর ও এস এম শাহজাদা এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে মেরিন একাডেমিতে লাইফ সাপোর্টসহ একটি উন্নত মানের হাসপাতাল স্থাপনের জন্য সুপারিশ করা হয়। এরআগে বাংলাদেশ মেরিন একাডেমি, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম এবং ন্যাশনাল মেরিটাইম ইন্সটিটিউটের কার্যক্রম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

বাংলাদেশ মেরিন একাডেমি নিয়ে আলোচনাকালে জানানো হয়, একজন মেরিনার ২০ বছরের পেশাগত জীবনে দেশের জন্য ১০ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে নিয়ে আসে। যা নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের জন্য উল্লেখযোগ্য অর্জন। এসময় চট্টগ্রাম বন্দরের চলমান প্রকল্প- পতেঙ্গা কন্টেইনার টার্মিনাল নির্মাণ, নিউমুরিং ওভারফ্লো কন্টেইনার ইয়ার্ড নির্মাণ, দ্বিতীয় নিউমুরিং ওভারফ্লো কন্টেইনার ইয়ার্ড নির্মাণ এবং সার্ভিস জেটি স্থানান্তর ও পুননির্মাণ কার্যক্রমে উপর বিস্তারিত প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: