ফতুল্লায় এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা


» আশরাফুল ইসলাম | ডেস্ক এডিটর | | সর্বশেষ আপডেট: ০৭ অক্টোবর ২০১৯ - ১২:৪২:০৩ অপরাহ্ন

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মাহবুবুল হক বাবলু (৫০) নামে এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ফতুল্লার হাজীগঞ্জ বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত বাবলু হাজীগঞ্জ এলাকার মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে।

নিহতের বড় ভাই জুয়েল রানা জানান, বাবলুর হাজীগঞ্জ বাজারে টিভি-ফ্রিজ মেরামতের দোকান আছে। তিনি বাজারের দোকানগুলোতে জেনারেটরের সংযোগ দিয়ে ব্যবসা করেন। স্থানীয় আলম, রাকিব, খালেকসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনের সঙ্গে জেনারেটরের ব্যবসা নিয়ে তার বিরোধ চলে আসছিল। গত রাত ৩টার দিকে বাবলু তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বের হয়ে বাড়ি ফেরার পথে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা আলম গংরা বাবলুর পথরোধ করে। পরে তাদের মধ্যে তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে তারা বাবলুকে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি মারে ও পিটিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। এরপর স্থানীয়রা বাবলুকে উদ্ধার করে শহরের খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক বাবলুকে মৃত ঘোষণা করেন।

ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক এসআই মিজানুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ আলমের ভাই রাকিবকে আটক করেছে। আর নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্যনারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মাহবুবুল হক বাবলু (৫০) নামে এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ফতুল্লার হাজীগঞ্জ বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত বাবলু হাজীগঞ্জ এলাকার মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে।

নিহতের বড় ভাই জুয়েল রানা জানান, বাবলুর হাজীগঞ্জ বাজারে টিভি-ফ্রিজ মেরামতের দোকান আছে। তিনি বাজারের দোকানগুলোতে জেনারেটরের সংযোগ দিয়ে ব্যবসা করেন। স্থানীয় আলম, রাকিব, খালেকসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনের সঙ্গে জেনারেটরের ব্যবসা নিয়ে তার বিরোধ চলে আসছিল। গত রাত ৩টার দিকে বাবলু তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বের হয়ে বাড়ি ফেরার পথে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা আলম গংরা বাবলুর পথরোধ করে। পরে তাদের মধ্যে তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে তারা বাবলুকে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি মারে ও পিটিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। এরপর স্থানীয়রা বাবলুকে উদ্ধার করে শহরের খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক বাবলুকে মৃত ঘোষণা করেন।

ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক এসআই মিজানুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ আলমের ভাই রাকিবকে আটক করেছে। আর নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সদর উপজেলার ফতুল্লায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মাহবুবুল হক বাবলু (৫০) নামে এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ফতুল্লার হাজীগঞ্জ বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত বাবলু হাজীগঞ্জ এলাকার মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে।

নিহতের বড় ভাই জুয়েল রানা জানান, বাবলুর হাজীগঞ্জ বাজারে টিভি-ফ্রিজ মেরামতের দোকান আছে। তিনি বাজারের দোকানগুলোতে জেনারেটরের সংযোগ দিয়ে ব্যবসা করেন। স্থানীয় আলম, রাকিব, খালেকসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনের সঙ্গে জেনারেটরের ব্যবসা নিয়ে তার বিরোধ চলে আসছিল। গত রাত ৩টার দিকে বাবলু তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বের হয়ে বাড়ি ফেরার পথে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা আলম গংরা বাবলুর পথরোধ করে। পরে তাদের মধ্যে তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে তারা বাবলুকে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি মারে ও পিটিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। এরপর স্থানীয়রা বাবলুকে উদ্ধার করে শহরের খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক বাবলুকে মৃত ঘোষণা করেন।

ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক এসআই মিজানুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ আলমের ভাই রাকিবকে আটক করেছে। আর নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ডেস্ক এডিটর/আ:ইসলাম