Avatar এরশাদ হোসেন বিজয়
Reporter


প্রাইমব্যাংকের নায়ক-আল-আমিন






উত্তরা নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ

ফতুল্লায় আল-আমিন ঝড়ে লণ্ডভণ্ড বিকেএসপি। বোলিং ফিগার ছিল দুর্দান্ত, ৮-৩-২০-৫! আল–আমিনেরবোলিং তাণ্ডবে বিকেএসপির ব্যাটসম্যানরা কেবল উইকেটে এসেছেন আর সাজঘরের পথ ধরেছেন। প্রাইমব্যাংকের ২২৩ রানের জবাবে মাত্র ৫০ রানে অলআউট হয়েছে তরুণদের নিয়ে গড়া দলটি। আর ১৭২ রানেরবিশাল জয় নিয়ে চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে সুপার সিক্স নিশ্চিত করার পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে এনামুলহকের দল। আল–আমিন ৮ ওভার বল করেছেন। ২০ রান খরচ করেছেন, উইকেট নিয়েছেন ৫টি।

ফতুল্লায় অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে প্রাইম ব্যাংকের দেয়া ২২৩ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ২২ ওভারে মাত্র ৫০ রান করে অলআউট হয়ে যায় বিকেএসপি। দলের পক্ষে দুই অঙ্কের ঘরে রান করেন একজন।

বিকেএসপির প্রথম ছয় ব্যাটসম্যানের পাঁচ জনই শিকার এই পেসারের। অভিমন্যু ঈশ্বরণের হাতে শামীম হোসেন রানআউট হলে প্রথম ছয়ের অন্যটি আল-আমিনের নামের পাশে লেখার সুযোগ হয়নি! আল-আমিন তাণ্ডবে এক পর্যায়ে মাত্র ২৬ রানে ৬ উইকেট হারায় বিকেএসপি। লোয়ারঅর্ডার ব্যাটসম্যান পারভেজ ইমন ১৫ রান করে লজ্জা এড়িয়েছেন সর্বনিম্ন রানের।

বিকেএসপির ইনিংসটিতে তিনজন ব্যাটসম্যান রানের খাতাই খুলতে পারেননি। সর্বোচ্চ ১৫ করা ইমনই কেবল দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছেছেন। বাকিদের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান আব্দুল কাইয়ুমের, ৭!

ইনিংসের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে প্রান্তিক নওরোজ নাবিল ও চতুর্থ বলে আমিনুল ইসলামকে ফেরান আল-আমিন। হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জেগে উঠলেও আল-আমিন তা করতে পারেননি।

পঞ্চম ওভারে এসে আকবর আলীকে ফেরান আল-আমিন। সপ্তম ওভারে এসে ফেরান ফাহাদ হোসেনকে। অর্থাৎ, প্রথম চারটি উইকেট ছিল আল-আমিনের দখলে। দশম ওভারে রান আউট হন শামীম হোসেন। দশম ওভারে এসে আব্দুল কাইয়ুমকে ফিরিয়ে ৫ নেয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেন আল-আমিন। এরপর নাঈম হাসান ২টি, আব্দুর রাজ্জাক ১টি ও মনির হোসেন ১টি করে উইকেট নেন।

প্রথমে ব্যাট করে বিপদে পড়েছিল প্রাইম ব্যাংকও। ভারতীয় ব্যাটসম্যান অভিমন্যু ঈশ্বরণ ও নাহিদুল ইসলামের ফিফটি বিকেএসপির মত দশা হতে দেয়নি। সেঞ্চুরি থেকে ৮ রান দূরে থেকে রান আউটে আক্ষেপে পুড়েছেন অভিমন্যু। ৫০ রান এসেছে নাহিদের ব্যাটে। অবশ্য আল-আমিনের কল্যাণে দিন শেষে ২২২ রানই বিশাল সংগ্রহ হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রাইম ব্যাংকের জন্য!

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

প্রাইম ব্যাংক: ৫০ ওভারে ২২২/৯ (এনামুল ২৩, সালমান ০, ইশ্বরণ ৯২, আল আমিন ১৭, আরিফুল ০, অলক ১, নাহিদুল ৫০, নাঈম ১৫, মনির ৩*, রাজ্জাক ১৫*; সুমন ১০-১-৪১-২, নওশাদ ১০-০-৩৭-২, মুরাদ ১০-০-৩৫-২

বিকেএসপি:  ৫০ (২২ ওভার) প্রান্তিক ২, ফাহাদ ৫, আমিনুল ০, আকবর ২, শামিম ২, কাইয়ুম ৭, ইমন ১৫, তানজিম ৪, নওশাদ ২*, সুমন ০, মুরাদ ০; আল আমিন হোসেন ৮-৩-২০-৫, মনির ৬-০-১৫-১, নাঈম ৪-০-৬-২, রাজ্জাক ১-১-০-১

ফলাফলঃ প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ১৭২ রানে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ আল আমিন হোসেন