নড়াইলে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিনে ধানকাটা শুরু


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ০২ মে ২০২০ - ০৪:২৮:২৮ অপরাহ্ন

নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের সংকটময় মুহূর্তে নড়াইলের সদর উপজেলায় কম্বাইন হারভেস্টার মেশিনের মাধ্যমে ধান কাটা শুরু হয়েছে। এর ফলে কৃষকরা দ্রুত ধান কেটে ঘরে তুলতে পারবেন।

শনিবার (২ মে) বেলা ১১টার দিকে এই মেশিনের মাধ্যমে ধানকাটার উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের ৫০ শতাংশ ভুর্তকির মাধ্যমে প্রায় ১৫ লাখ টাকায় গত ২৮ এপ্রিল মেশিনটি কিনেছেন নড়াইলের হবখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম চঞ্চল।

সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম জানান, স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় একরপ্রতি ধান কাটতে ১২ থেকে ১৩ হাজার টাকা খরচ হয়। এই মেশিন দিয়ে ধানকাটা ও ঝাড়াতে খরচ হবে ৬ থেকে সাড়ে ৬ হাজার টাকা। এক একর জমির ধান কাটতে সময় লাগবে এক ঘণ্টা।

করোনাভাইরাসের কঠিন সময়ে কৃষকের কষ্ট লাগবে প্রধানমন্ত্রী ভুর্তকির মাধ্যমে কৃষকদের এই মেশিন দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন।

মেশিনটির মালিক ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজুল ইসলাম চঞ্চল বলেন, গত বুধবার (২৯ এপ্রিল) এই মেশিন দিয়ে এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে প্রায় ৬ শতক জমির ধান কেটেছেন। এখন আনুষ্ঠানিকভাবে ধানকাটা শুরু হলো।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর নড়াইলের উপপরিচালক চিন্ময় রায় বলেন, এই মেশিনের মূল্য প্রায় ২৮ লাখ টাকা। এক্ষেত্রে সরকার ৫০ শতাংশ  ভুর্তকি দিয়েছে। যে ব্যক্তি মেশিনটি কিনবেন, তিনি অর্ধেক দামে কিনতে পারবেন।

তিনি জানান, জেলার জন্য ছয়টি মেশিন পাওয়া গেছে। পাঁচটি মেশিন প্রক্রিয়াধীন আছে। সদর উপজেলায় চারটি এবং লোহাগড়া ও কালিয়া উপজেলায় একটি করে মেশিন দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, নড়াইলে ধানকাটা শ্রমিকের তেমন সংকট হবে না। কম্বাইন হারভেস্টার মেশিনের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনসহ ব্যক্তিগতভাবে অনেকে ধান কেটে দিচ্ছেন।

নড়াইলে এখন পুরোদমে ধানকাটা চলছে। এ বছর জেলায় ৪৭ হাজার ৩৭০ হেক্টর জমিতে বোরা ধান চাষাবাদ হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা প্রায় ২ লাখ মেট্রিক টন।