নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ ঘটনায় ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ সমাবেশ

নারায়ণগঞ্জে মসজিদে গ্যাস বিস্ফোরণে নিহত ও আহতদের পরিবারকে ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ ও দোষীদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে - বিক্ষোভ সমাবেশে মাওলানা গাজী আতাউর রহমান

islami andolan
» এইচ এম মাহমুদ হাসান | | সর্বশেষ আপডেট: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ - ০৭:০২:০৪ অপরাহ্ন

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান বলেছেন, নারায়ণগঞ্জের তল্লা বায়তুস সালাহ জামে মসজিদে গ্যাস বিস্ফোরণে ৩১জন মুসল্লি নিহত ও অনেকে আহত হয়ে এখনও মৃত্যু যন্ত্রণা নিয়ে হাসপাতালে কাতরাচ্ছে। এ ঘটনার মধ্য দিয়ে তিতাস গ্যাসের দুর্নীতি ও হরিলুটের ঘটনা প্রকাশ হলো। তিনি বলেন, তিতাস গ্যাসের দুর্নীতিবাজদের চাহিদা পূরণ করতে না পারায় গ্যাস লাইন বিস্ফোরণ হয়ে ৩১টি তাজা প্রাণকে শাহাদাত বরণ করতে হলো। মসজিদে আল্লাহর মেহমানরা সিজদারত অবস্থায় শাহাদাতবরণ করলো। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে দুঃখ প্রকাশ কিংবা রাষ্ট্রীয় শোক প্রকাশ করার মত সহানুভূতিটুকুও করতে পারলো না সরকার। এটি বিরানব্বই ভাগ মুসলমানের জন্য চরম দুর্ভাগ্যজনক।

আজ শুক্রবার বিকেলে নারায়ণঞ্জে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের অবহেলায় মসজিদে বিস্ফোরণে হতাহতদের যথাযথ ক্ষতিপূরণ এবং দোষীদের শাস্তির দাবিতে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব চত্ত্বরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগরের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

islami andolan-iab

জেলা সভাপতি মাওলানা আনোয়ার হোসেন জেহাদীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মহানগর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জনাব মুহাম্মদ নূর হোসেন, সাবেক মেয়রপ্রার্থী মুফতী মাসূম বিল্লাহ, মাওলানা শাহ আলম কাঁচপুরী, মুহাম্মদ সুলতান মাহমুদ। এছাড়াও জেলার অন্যান্য নেতৃবৃন্দ, সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

মাওলানা গাজী আতাউর রহমান আরো বলেন, সরকার চোখে অবৈধের চশমা লাগিয়েছে। ফলে মসজিদকেও অবৈধ দেখছে। তিনি বলেন, তদন্ত রিপোর্টে মসজিদটি যথাযথ নিয়ম মেনে করা হয়েছে এবং তিতাস গ্যাসের দুর্নীতি স্পষ্ট হয়েছে। কাজেই দুর্নীতিবাজদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে এবং ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে ৫০ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। এ নিয়ে কোন টালবাহান করলে দেশের সাড়ে তিন লাখ মসজিদ থেকে একযোগে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

islami andolan-iab

গাজী আতাউর রহমান বলেন, তিতাস গ্যাসের দুর্নীতিবাজদের অবৈধ দাবী পূরণ না করার কারণে গ্যাস লিকেজ মেরামত না করে অবহেলা করায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। সরকার এর দায়ভার কিছুতেই এড়াতে পারবে না। মুসল্লি হত্যার দায়ে তিতাসে দুর্নীতিবাজদের কঠোর শাস্তি দিতে হবে। তিনি বলেন, সরকারের প্রতিটি সেক্টর দুর্নীতিগ্রস্থ। দুর্নীতিবাজদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়ে সরকার নিজেও দুর্নীতিবাজ হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবেন।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা আনোয়ার হোসেন জেহাদী বলেন, সরকার নিজে অবৈধ হওয়ায় এখন মসজিদকেও অবৈধ বলছে। মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের নিকট লিকেজ ঠিক করে দেয়ার জন্য একাধিকবার আবেদন করলেও ৫০ হাজার টাকা উৎককোচ না দেয়ায় তাদের অবহেলায় যে মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে, তাকে দুর্ঘটনা হিসেবে নয়, হত্যাকাণ্ড হিসেবে আমলে নিয়ে কর্তব্য পালনে অবহেলাকারীদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে।

পরে একটি বিশাল মিছিল শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকা প্রদক্ষিণ করে মোনাজাতের মাধ্যমে মিছিলের সমাপ্তি করা হয়।