দৌলতখানে প্রধান শিক্ষকের উপর সন্ত্রাসী হামলা


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ১৮ মে ২০২০ - ০৭:২৫:১৬ অপরাহ্ন

দৌলতখান (ভোলা) সংবাদদাতা: দৌলতখান উপজেলার চরখলিফা ৭ নং ওয়ার্ডে আবুল সওদাগর হাটে নিজ বাড়ির সামনে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন পশ্চিম দক্ষিন মধ্যে কলাকোপা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’র প্রধান শিক্ষক মাওলানা মাকসুদুর রহমান।

সোমবার বেলা ১ টা ২০ মিনিটে ঘটে হামলার ঘটনা। মন্নান(৬২) নেতৃত্বে খালেক(৫২) রশিদ(৪৮) করিম (৩৫) হাসনাইন(৩২) মামুন(৩০) মজনু(২৮) সহ ১০ থেকে ১৫ জন অতর্কিত হামলা চালায়। পেটানো হয় মাকসুদুর রহমান ও তার ছেলে মমিন(২৪)কে। গত ৩ দিনের ব্যবধানে দ্বিতিয় বার ঘটলো হামলার ঘটনা। অথচ সরোয়ার আলম বাদি হয়ে থানায় অভিযোগ দাখিল করেছিল। ঐ অভিযোগে ১নং সাক্ষী মাকসুদুর রহমান। আর সে জন্যই তার উপর ঘটলো হামলার ঘটনা। যদি ঐ ঘটনার পর তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেওয়া যেতো তবে আজকের হামলার ঘটনা ঘটতো না বলে অভিমত আহতদের।

আহত ও প্রতক্ষদর্শিরা বলছেন দীর্ঘদিন যাবত মাকসুদুর রহমানের জমি জোর করে দখল করার চেষ্টা করছে মন্নান গং। মুলত মাকসুদুর রহমানের ভাই ছানাউল্লা মিয়া মানসিক অসুস্থ্য থাকার সময় প্রতারনার মাধ্যমে তার কাছ থেকে জমি লিখে নেয় মন্নান। সুচতুর মন্নান ৮ সতাংস জমি কিনে একটি বাড়তি শুন্য যোগ করে তা ৮০ সতাংশ করে নেয় কাগজে। মানসিক ভারসাম্যহীন থাকার কারনে ছানাউল্লা কিছু বুঝতে পারেনি। এভাবে বহু জমি লিখে নেয় মন্নান।

মামলা মোকদ্দমায় মন্নানের প্রতারনা ধরা পড়ে রায় হয় মাকসুদদের পক্ষে। কিন্তু কিছু দিন পর পর ক্যাডার নিয়ে জমি দখলে যায় মন্নান। প্রতিবারই হামলা করে মাকসুদদের উপর। দুর্দান্ত প্রকৃতির চরিত্রের দুষ্ট মন্নান দৌলতখানের এক কাঠ ব্যবসায়ীকে প্রতারনার মাধ্যমে পথে বসিয়েছে। কোর্টে মামলার রায় ঐ কাঠ ব্যবসায়ীর পক্ষে যায়। তার ছেলে গুলো এলাকার চিন্হিত সন্ত্রাসী ও মাদকসেবী। এক ছেলের আচরনে অতিষ্ঠ এলাকার লোক। মন্নান ও তার ছেলেরা এর আগেও বহুবার এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। শালিসি বিচার কোন কিছুই মানতে চায় না মন্নান ও তার ছেলেরা। মুলত বহু অপকর্মের হোতা মন্নান এখন ছেলেদের ও নিজ কাজে ব্যবহার করছেন। হামলার তিব্র নিন্দা জানিয়ছেন দৌলতখান শিক্ষক সমিতির সভাপতি মহিবুর রহমান, সম্পাদক শফিকুর রহমান ডাবলু। একটি বিবৃতিতে তারা দোষী মন্নান গংদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি করেছেন।

একাধিক সূত্র থেকে জানা গেছে, মন্নান গং নিজেদের দোকান ভেঙ্গে মাকসুদ মাওনাদের ফাসাতে চেষ্টা করছে। মাকসুদুর রহমান বাদি হয়ে থানায় অভিযোগ দাখিলের প্রস্তুতি চালাচ্ছে।

দৌলতখান থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলার রহমান জানান অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। হামলার ঘটনায় ক্ষোভ বিরাজ করছে শিক্ষক সমাজের মাঝে।