দেশ এখন আর জঙ্গিদের পক্ষে নেই-প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

উত্তরা নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, তাঁর দেশ এখন আর জঙ্গিদের পক্ষে নেই। সরকার চাচ্ছে তাদের সেনাবাহিনী ও গোয়েন্দারা জঙ্গিদের নিশ্চিহ্ন করে দিক। গতকাল মঙ্গলবার নিজ কার্যালয়ে বিদেশি সাংবাদিকদের একটি দলের কাছে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পাকিস্তান জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষকতা করছে—এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে ইমরান খান বিদেশি ওই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। এতে তিনি অকপটে স্বীকার করেন, ১৯৮০ সালে সোভিয়েত-আফগান যুদ্ধের সময় পাকিস্তানের সেনাবাহিনী জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষকতা করেছিল। তবে ওই জঙ্গিদের পাকিস্তান সৃষ্টি করেনি; যুক্তরাষ্ট্র সৃষ্টি করেছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধে নিয়োজিত আন্তর্জাতিক সংস্থা ফাইন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্কফোর্সের (এফএটিএফ) নিষেধাজ্ঞা এড়াতে জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চাপের মধ্যে রয়েছে পাকিস্তান। তবে ইমরান খান বলেছেন, পাকিস্তান নিজ স্বার্থে এই জঙ্গিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে।

ইমরান খান বলেন, সবাই জানেন বর্তমানে পাকিস্তানে যা ঘটছে, তা আগে কখনো ঘটেনি। পাকিস্তানের ৩০ হাজারের বেশি মাদ্রাসা সরকারের নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ছাড়া হাজার হাজার সাবেক জঙ্গির পুনর্বাসনের চেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, ‘দেশের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে, বাইরের চাপ ভুলে গিয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, দেশ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, কোনো সশস্ত্র গোষ্ঠীকে আমাদের দেশে কার্যক্রম চালাতে দেব না।’

ইমরান খান বলেন, পারমাণবিক শক্তিধর প্রতিবেশী ভারতের সঙ্গে পাকিস্তান সুসম্পর্ক বজায় রাখতে সদা প্রস্তুত। সাম্প্রতিক সময়ে তাঁর দেশের সঙ্গে উত্তেজনাকর যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য তা প্রশমন জরুরি। এ প্রসঙ্গে ইমরান খান বলেন, ভারতের সঙ্গে বিরোধ নিষ্পত্তিতে পাকিস্তান জঙ্গিদের ক্রমাগত মোকাবিলা করে যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিযোগ রয়েছে, পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী ভারত-আফগানিস্তানসহ প্রতিবেশী দেশগুলোতে জঙ্গি কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। তবে বরাবরই পাকিস্তান এসব অভিযোগ অস্বীকার করে থাকে। বিদেশি সাংবাদিকদের সঙ্গে ইমরান খানের গতকালের আলোচনায় একই অভিযোগের বিষয়টি ওঠে আসে। তবে ইমরান খান এ অভিযোগ অস্বীকার করলেও সোভিয়েত-আফগান যুদ্ধের সময় তার দেশের সেনাবাহিনীর অবস্থান অকপটে স্বীকার করলেন।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *