উত্তরা নিউজ উত্তরা নিউজ
অনলাইন রিপোর্ট


দুই মেয়রকে অনতিবিলম্বে পদত্যাগ করতে হবে: আলাল






ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল।

তিনি বলেন, আমাদের মূল কথা হচ্ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত গরিব মানুষদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দিতে হবে। দুই মেয়রকে অনতিবিলম্বে পদত্যাগ করতে হবে, স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বরখাস্ত করতে হবে এবং সাধারণ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলো যেভাবে এগিয়ে এসেছে তাদের শত্রু মনে করে দমন না করে তাদের কাজ করার সুযোগ দিতে হবে।

আজ (শুক্রবা) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ডেঙ্গু আক্রান্তদের ফ্রি টেস্ট ও চিকিৎসা এবং বনার্ত এলাকার সকল ঋণ মওকুফ ও সুদবিহীন নতুন ঋণ প্রদানের দাবিতে বাংলাদেশ মানবাধিকার পরিষদ আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আলাল বলেন, আমাদের রাজনীতির মূল বিষয় হচ্ছে মানুষের পাশে থাকা, অসহায় মানুষের পাশে থাকা এবং নির্যাতিত মানুষকে সহায়তা করা। আপনারা দেখেছেন অর্থমন্ত্রী শুরুতে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে জাতীয় বাজেট পেশ করতে পারেননি। অর্থমন্ত্রী পরবর্তীতে অনেকবার বলেছেন, আমি অফিসে যাই না ডেঙ্গু মশার ভয়ে। নাসিম সাহেব বলেছেন দুই মেয়র ব্যর্থ। মোহাম্মদ নাসিম গত কালকেও আবার বলেছেন, আওয়ামী লীগের নেতারা ফিল্মি স্টাইলে রাজধানীর প্রধান সড়কে ওষুধ ছড়ালে তাতে কাজ হবে না। ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় যেতে হবে। একইসাথে তাদের ব্যর্থতা এবং এই নকল মশার ওষুধ এক মেয়র স্বীকার করেন আরেক মেয়র স্বীকার করেন না। এই সমন্বয়হীনতার মধ্য দিয়ে দেশে আবার নতুন করে একটি মহামারী আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারের সমালোচনা মানে সরকারের শত্রুতা নয়। সরকারের সমালোচনা মানে সরকারের ভুল ধরিয়ে দেয়া। সরকারের সমালোচনা করার মানে দায়িত্বশীলরা যেন ভালোভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারে সেই কাজে সহায়তা করা।

সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, ৬ লক্ষ কোটি টাকা পাচার করেছেন। যে টাকা দিয়ে ১৮টি পদ্মা সেতু নির্মাণ করা যায়। ডেঙ্গু আক্রান্ত গরিব মানুষদের চিকিৎসা কেন বিনামূল্যে করতে দেবেন না? ঋণখেলাপিদের শেয়ার মার্কেট ছেড়ে দিয়েছেন, ঋণখেলাপিদের ব্যাংক ছেড়ে দিয়েছেন, লুটপাটের স্বর্গ রাজ্য করে দিয়েছেন। তাহলে কেন কৃষকের ঋণ মওকুফ করবেন না?

আলাল বলেন, আমরা এই ডেঙ্গু মশার প্রকোপ থেকে বাঁচার জন্য গণসচেতনতা কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। লাখো লিফলেট আমরা ছাপিয়েছি, সারাদেশে বিতরণের জন্য। ড্যাবের নেতৃত্বে মেডিকেল টিম হয়েছে। আপনারা দেখেছেন গতকালও প্রশাসন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সচেতনতামূলক র্যালির অনুমোদন দেয়নি। আমরা বলবো অনতিবিলম্বে বাংলাদেশের দল-মত নির্বিশেষে সমস্ত চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ এবং জনগণের কল্যাণে যারা কাজ করছে সে সব মানবাধিকার সংগঠনগুলোকে নিয়ে জাতীয় পর্যায়ে একটি ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার করা হোক। যেখান থেকে ডেঙ্গু রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দেওয়া হবে।

আয়োজক সংগঠনের ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুল আলমের সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের মহাসচিব আ স ম মোস্তফা কামালের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মাদ রহমাতুল্লাহ, অ্যাডভোকেট আবেদ রেজা, তাঁতী দলের যুগ্ম-আহ্বায়ক ড.কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ বক্তব্য দেন।