তুরাগের অবহেলিত জনপদ পাকুরিয়া-তালটেক

ডিএনসিসি ৫২ নং ওয়ার্ড

» মুহাম্মদ গাজী তারেক রহমান | উত্তরা নিউজ, স্টাফ রিপোর্টার | সর্বশেষ আপডেট: ১৫ জানুয়ারি ২০২০ - ১২:০৮:২১ অপরাহ্ন

ডিএনসিসি ৫২ নং ওয়ার্ডভুক্ত যাত্রাবাড়ি, পাকুরিয়া, খানটেক, তালটেকসহ আশপাশের এলাকাগুলো অনুন্নত, অস্বাস্থ্যকর ও ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে ডুবে আছে। বিশেষ করে এলাকার প্রধান রাস্তা হিসেবে পাকুরিয়া থেকে উত্তরা ১৪নং সেক্টরের দিকে আসা সড়কটিই যানচলাচলের একমাত্র ভালো রাস্তাগুলোর মধ্যে অন্যতম। সড়কটিতে ছোট ছোট গর্ত, ইটের কণা এলাকাবাসীর নিত্য-নৈমত্তিক যান চলাচল ও স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি থাকার পাশাপাশি সড়কের দুপাশে ছোট বড় দোকানপাট, যেখানে সেখানে ছোট ছোট পরিসরে দোকানীদের কেনাবেচার দৃশ্য মারাত্মক উদ্বেগজনক। ওয়ার্ডস্থ সড়কটিতে কোন ফুটপাত না থাকায় যানবাহনের গা ঘেঁষেই চলাচল করতে হচ্ছে এখানকার বাসিন্দাদের।


অন্যদিকে, এই সড়কের দুপাশে অবস্থিত এলাকাগুলো যথাক্রমে পাকুরিয়া, খানটেক, যাত্রাবাড়ি ও তালটেকে প্রবেশের রাস্তাগুলোর অবস্থা একেবারে নাজুক। এলাকাগুলোতে প্রবেশে ভাঙ্গাচোরা ও খানাখন্দে ভরপুর রাস্তাগুলো একেবারেই সরু। জরুরী ভিত্তিতে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি, অ্যাম্বুলেন্স, পুলিশের নিরাপত্তা টহলের গাড়ী প্রবেশের কোন সুযোগ নেই এসব রাস্তায়। ফলে মারাত্মক ঝুঁকিতেই বসবাস করছে প্রায় কয়েক হাজার ওয়ার্ডবাসী। এছাড়াও ৫২নং ওয়ার্ডের এই জনপদে নেই কোন ভালো মানের স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান, সুপরিসরের খেলার মাঠ বা বিনোদন কেন্দ্র, কমিউনিটি সেন্টার এমনকি ঈদগাহ মাঠ।


ওয়ার্ডস্থ এলাকাগুলোর কয়েকজন বাসিন্দার সাথে কথা বলে জানা যায়, মূলত রাস্তা না থাকায় নানাবিধ সমস্যা পোহাতে হচ্ছে তাদের। বিশেষ করে, একটু বৃষ্টি হলেই শুরু হয় ভোগান্তি। ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় কাদাপানিতে একাকার হয়ে যায় রাস্তাগুলো। এই দৃশ্য যেন যাত্রাবাড়ি, পাকুরিয়া, খানটেক, তালটেকসহ পুরো ৫২নং ওয়ার্ড জুড়েই বিদ্যমান। ওয়ার্ডবাসীর অভিযোগ, কাউন্সিলর প্রার্থীরা বার বার প্রতিশ্রুতি দিয়ে গেলেও কয়েক দশকেও উন্নত হয়নি এখানকার জীবনযাত্রার মান। তবে, এলাকাগুলো ডিএনসিসির আওতায় আসায় এবার পরিবর্তনের আশা দেখছেন এখানকার ভোটারেরা।