ঢাবির বাসে হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন


» উত্তরা নিউজ | অনলাইন রিপোর্ট | সর্বশেষ আপডেট: ২১ নভেম্বর ২০১৯ - ০৫:৫১:৩৪ অপরাহ্ন

পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

এতে বাসে হামলাকারীদের সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

এসময় বক্তারা এই ঘটনায় পরিববন শ্রমিক নেতাদের আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা না চাইলে, তাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হবে বলে হুশিয়ারি দেন এবং ঢাবির আশেপাশের গণপরিবহনের রুট বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়।

মানববন্ধনে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর বলেন,পরিবহন শ্রমিকরা তাদের স্বার্থে আঘাত লাগলে আন্দোলন করতে পারে। কিন্তু আন্দোলনের নামে কেন সাধারণ মানুষের মুখে কালি মেখে দেবে? কেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে হামলা করা হবে? এটা কোনো আন্দোলন নয়, এটা ছিল একটা নৈরাজ্য এবং উস্কানিমূলক আন্দোলন। আপনারা জানেন, পরিবহন সেক্টরকে কারা বার বার উস্কে দেয়, কারা নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য সরকারকে একটি মেসেজ দেয়, কারা শ্রমিকদের রাস্তার নামিয়ে তাদের স্বার্থ রক্ষা করে।

নুর বলেন, রাস্তাঘাটে যে যানবাহন চলে ৬০ শতাংশ ফিটনেসবিহীন, ৪০ শতাংশ লাইসেন্সবিহীন। এখন নতুন আইনে তারা দেখতেছে তাদের ব্যবসায় লস হবে, তাদের স্বার্থে আঘাত লাগবে।তাই তারা সাধারণ মানুষকে কষ্ট দিয়ে তারা হুজুগের ওপর একটি আন্দোলন করছে। অন্যদিকে শিক্ষার্থীদের বাসে হামলার সময় কর্তব্যরত পুলিশ তার দ্বায়িত্বপালন না করে ভিডিও ধারণ করেছে। এটা একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা। আমরা পরিবহন সম্পাদক বলবো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যদি এ বিষয়ে দ্বায়িত্ব না নেন, তাহলে আপনি এর বিরুদ্ধে মামলা করুন, যাতে ভবিষ্যতে কেউ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে আঘাত করা সাহস না পায়।

মানববন্ধনে ডাকসুর পরিবহন সম্পাদক শামস ঈ নোমান বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে হামলা মানে ঢাবির ঐতিহ্যের ওপর হামলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৩ হাজার শিক্ষার্থীর ওপর হামলা। আমরা হামলাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে সরকারকে আহ্বান জানাচ্ছি। ধর্মঘটের নাম করে যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস ভাংচুর করে তারা সন্ত্রাসী। এসকল সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।