ঢাকা আই কেয়ার হসপিটাল উত্তরার উদ্দ্যোগে বিশ্ব গ্লোকমা সপ্তাহ-২০২০ উদযাপিত


» Md. Neamul Hasan Neaz | | সর্বশেষ আপডেট: ১৩ মার্চ ২০২০ - ০৫:৩৭:০৯ অপরাহ্ন

উত্তরাস্থ ঢাকা আই কেয়ার হসপিটাল এর উদ্দ্যোগে বিশ্ব গ্লোকমা সপ্তাহ-২০২০ উদযাপিত হয়েছে।

আজ শুক্রবার (১৩মার্চ) ২০২০ খ্রি. তারিখ ঢাকা আই কেয়ার হসপিটাল এর উদ্দ্যোগে উত্তরায় দিনব্যাপী বিনামূল্যে চোখের চাপ পরীক্ষা এবং গ্লোকমা রোগ শনাক্ত করণ কর্মসূচী পালনকরা হয়।

গ্লোকমা রোগ সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করবার লক্ষ্যে একটি সেমিনার আয়োজন করা হয়। সেমিনারে গ্লোকমা রোগ এবং এর প্রতিরোধ সম্পর্কে উপস্থাপন করেন দেশের খ্যাতিমান গ্লোকমা রোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা: হারুন-উর-রশীদ। ঢাকা আই কেয়ার হসপিটালের মাননীয় চেয়ারম্যান বী র মুক্তিযোদ্ধা বিশিষ্ট চক্ষু রোগ বিশেষজ্ঞ ডা: গোলাম সরওয়ার, বাংলাদেশ গ্লোকমা সমিতির সভাপতি – অধ্যাপক ডা: মিজানুর রহমান, বাংলাদেশ গ্লোকমা সমিতির মহাসচিব ডা: সালমা পারভীন প্রমুখ।

এসময় দৈনিক জাগরণের সম্পাদক জনাব আবেদ খান এবং অধ্যাপক ডা: হারুন-উর-রশীদের মাতা মিসেস হাছিনা সরওয়ার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনায় দেশের স্বনামধন্য চক্ষু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা: হারুন-উর-রশীদ বলেন, অনিরাময়যোগ্য অন্ধত্বের প্রধানতম কারণ চোখের গ্লোকমা রোগ। গ্লোকমা রোগটি হলো “দৃষ্টির নিরব ঘাতক”। বাংলাদেশে প্রায় ৩ শতাংশ মানুষ গ্লোকমা রোগে আক্রান্ত। বাংলাদেশে প্রায় ৯৬ শতাংশ গ্লোকমা রোগী জানে না তারা গ্লোকমা রোগে আক্রান্ত।

দেশবরেণ্য সাংবাদিক জনাব আবেদ খান বলেন, গ্লোকমা একটি পারিবারিক অসুখ এবং পরিবারের সকলকেই গ্লোকমার পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া প্রয়োজন তাদের গ্লোকমা আছে কিনা। গ্লোকমা সমিতির নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে গ্লোকমা রোগ শনাক্ত করণ এবং শুরুতেই চিকিৎসা গ্লোকমা জনিত অন্ধত্ব প্রতিরোধের একমাত্র উপায়। আলোচনা শেষে গ্লোকমা রোগ সম্পর্কে জনসচেতনা বৃদ্ধির লক্ষ্যে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি করা হয়।