টিউশন ফি আদায়ে মাউশির একমুখী নির্দেশনা অনৈতিক


» এইচ এম মাহমুদ হাসান | | সর্বশেষ আপডেট: ২২ নভেম্বর ২০২০ - ০১:০৮:১৯ অপরাহ্ন

অভিভাবকদের থেকে মাউশির একমুখী টিউশন ফি আদায়ের নিদের্শনা অনৈতিক ও অমানবিক বলে দাবি করেছে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ অভিভাবক ফোরাম। একই সঙ্গে শিক্ষক প্রতিনিধি ফাতেমা যাহেরা হকের দুর্নীতি ও অয়িমের বিচার দাবি করেছে সংগঠনটি।

শনিবার (২১ নভেম্বর) ফোরামের পক্ষ থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মাসের পর মাস স্কুল ও কলেজে না পড়িয়ে এই করোনাভাইরাসের মধ্যে টিউশন ফি ও অতিরিক্ত ফি আদায় করছিল ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ। আগের অতিরিক্ত টাকা এখনো ফেরত দেয়নি। এ ব্যাপারে তদারকি করেও কোনো অভিভাবক টাকা ফেরত পাননি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে এক লাখ টাকার ওপর উন্নয়নকাজে টেন্ডারের নিয়ম ও নির্দেশনা থাকলেও তা মানছে না কলেজ কর্তৃপক্ষ। বিনা টেন্ডারের মাধ্যমে উন্নয়নের নামে সদস্যদের মধ্যে কাজ ভাগাভাগি করে লাখ লাখ টাকা লুটপাট করছে। এ ব্যাপারে সঠিক তদন্ত দাবি করেছে অভিভাবক ফোরাম।

এতে তারা কয়েকটি দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- টিউশন ফি বিষয়ে মাউশি থেকে নির্দেশনা পুনর্বিবেচনা করতে হবে। ক্ষতিগ্রস্ত ছাত্রীদের ফুল ফি অথবা হাফ ফি দিতে হবে। করোনাকালীন অতিরিক্ত ফি ফেরত না দিলে অধ্যক্ষকে যথাযথ বিচার-বিশ্লেষণ করে বিচারের আওতায় আনতে হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে সব বিষয়ে মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রশাসনিক কর্মকর্তা নিয়োগ পরীক্ষার খাতা টেম্পারিংয়ের বিচার দাবি করে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অভিভাবক ফোরাম। এ ঘটনায় বর্তমান অধ্যক্ষ অধ্যাপক ফৌজিয়া ও শিক্ষক প্রতিনিধি ফাতেমা যোহরা হকের অনিয়ম প্রমাণিত হওয়ায় কি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে তা অভিভাবকদের কাছে তুলে ধরার দাবি জানানো হয়েছে।