উত্তরা নিউজ উত্তরা নিউজ
অনলাইন রিপোর্ট


ঝিনাইদহেও ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু






ঝিনাইদহেও ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু রোগ। ফলে জ্বর হলেই মানুষ সদর হাসপাতালে ছুটে আসছেন। কেউ হাসপাতালে ভর্তি হতে, কেউবা ডেঙ্গু পরীক্ষা করাতে হাসপাতালে আসছেন। তবে ডেঙ্গু পরীক্ষায় প্রতিদিন এ হাসপাতালে ৩০-৩৫টি কিটস দরকার হলেও এসেছে মাত্র ১২০ পিস। যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম। ফলে রোগীরা হাসপাতালে এসে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

এদিকে জেলায় ক্রমশই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগ। প্রতিদিন সদর হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন নতুন নতুন রোগী। হাসপাতালে খোলা হয়েছে ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়া রোগে বিশেষ যত্ন কর্ণার। বর্তমানে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ২২ জন রোগী ভর্তি হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আর গত মাসে ৩৫ জন রোগী হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।

হাসপাতালে আসা রোগীরা জানান, সরকারি হাসপাতালে এসে তারা ডেঙ্গু পরীক্ষা করাতে পারছেন না। এতে বাধ্য হয়েই প্রাইভেট হাসপাতালে পরীক্ষা করাতে হচ্ছে।

হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আশা শরিফুল ইসলাম বলেন, দুই দিন ধরে জ্বর। এ জন্য হাসপাতালে এসে বহির্বিভাগে ডাক্তার দেখালে তিনি ডেঙ্গু পরীক্ষা করতে বলেছেন। পরীক্ষার জন্য হাসপাতালের প্যাথলজিতে গেলে তারা বলে দেন এখানে পরীক্ষা হবে না, কিটস নেই। এখন বাধ্য হয়ে বাহির থেকে পরীক্ষা করাতে হবে।

তবে হাসপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষা করা হচ্ছে না এমন অভিযোগ অস্বীকার করে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আয়ুব আলী বলেন, চাহিদার তুলনায় কিটস কম আসায় সব রোগীর পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। আমরা শুধুমাত্র বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শে তারা যে রোগীর কথা বলছেন শুধু তাদেরই পরীক্ষা করছি।

তিনি বলেন, আমাদের হাসপাতালে কিটস এসেছে ঠিকই কিন্তু সেটা দিয়ে শুধুমাত্র জ্বর আসার তিনদিনের মধ্যেই রোগীর ডেঙ্গু পরীক্ষা (এনএস-১) করা যায়। কিন্তু এর বেশিদিন জ্বর হলে এই কিটস দিয়ে তা পরীক্ষা করা সম্ভব না। তবে আমাদের চাহিদার কথা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

হাসপাতালের জুনিয়র মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. জাকির হোসেন জানান, হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। তবে আক্রান্তদের শারীরিক অবস্থা খুব মারাত্মক না। আতঙ্কিত না হয়ে তাদের তরল খাবার খাওয়ার পরামর্শসহ প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন ডা. সেলিনা বেগম জানান, জেলায় মোট ১২০টি কিটস এসেছে। যার মধ্যে ১০০টি সদর হাসপাতালে দেয়া হয়েছে। বাকি ২০টি কিটস স্টকে রাখা হয়েছে। প্রতিটি কিটস দিয়ে একজন রোগীর ডেঙ্গু পরীক্ষা করা সম্ভব।

উত্তরা নিউজ/এস,এম,জেড