জেনে নিন ফেসবুকে কীভাবে প্রতারণার শিকার হতে পারেন


» উত্তরা নিউজ | অনলাইন রিপোর্ট | সর্বশেষ আপডেট: ২৯ অক্টোবর ২০১৯ - ০১:৪৩:১২ অপরাহ্ন

‘ভাই, আমি বিপদে পড়েছি। আমার ৫ হাজার টাকা দরকার। দ্রুত এই নম্বরে বিকাশ করে দেন।’ নম্র-ভদ্র, বিনয়ী খালাতো ভাই তায়েফুল ইসলামের এমন মেসেজ দেখে ফোন করে আর বিরক্ত করতে চাননি মামাতো ভাই ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম। দ্রুত তিনি বিকাশ করে ৫ হাজার টাকা দেন। কিছুক্ষণ পর প্রতারণার বিষয়টি মাথায় এলে ফোন দেন তায়েফুলকে। তখন নম্বরটি বন্ধ পান। বিকালে ফোন করে জানতে পারেন চাকরির ইন্টারভিউয়ের কারণে মোবাইল নম্বরটি বন্ধ ছিল। কিন্তু টাকা চেয়ে তিনি কোনো মেসেজ পাঠাননি।

ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলার পর নিজের ফেসবুকে ঢুকতে গিয়ে দেখেন তার আইডি হ্যাকড হয়েছে। পরিচিত আরো বহু মানুষের কাছে এমন মেসেজ পাঠানো হয়েছে। শুধু তায়েফুল নয়, এমন বহু মানুষ প্রতিদিন প্রতারণার শিকার হচ্ছেন। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার নাজমুল ইসলাম বলছেন, ‘আগে অভিযোগ বেশি থাকলেও সম্প্রতি কিছুটা কমেছে। তাতেও প্রতিদিন এখন গড়ে ২০০-র বেশি অভিযোগ জমা হচ্ছে। এর অধিকাংশই আইডি হ্যাকড সংক্রান্ত। তবে হ্যাকিং বা সমস্যার শিকার হলেও অনেক অভিযোগই কর্তৃপক্ষ পর্যন্ত যায় না। নিজেরাই সমাধানের চেষ্টা করেন।

শুধু চাঁদা চাওয়া বা প্রতারণাও নয়, সমাজে বিদ্বেষ ছড়ানো এমনকি ব্যবসায়িক স্বার্থেও কারো আইডি হ্যাকড হচ্ছে। ফেনীর ঘটনাটি এর বড়ো উদাহরণ। এর আগে রামুতেও একই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে ভুল তথ্য দিয়ে কাউকে বিপদে ফেলার চেষ্টাও করছেন হ্যাকাররা। ফেসবুকের মাধ্যমে এভাবে প্রতিদিন নিত্যনতুন প্রতারণার জালে পা দিচ্ছেন সাধারণ মানুষ। না বুঝে প্রতারকদের খপ্পরে পড়ে নিঃস্ব হচ্ছেন সাধারণ ফেসবুক ব্যবহারকারীরা। কোনো কোনো ক্ষেত্রে আইডি হ্যাক করার পর আইডির প্রকৃত মালিকের কাছেও টাকা দাবি করছে ডিজিটাল এই অপরাধীরা। টাকা দিলে ফেরত দেওয়া হয় আইডি। এই অভিযোগগুলো আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হিসাবের খাতায় জমা হচ্ছে না।

ফেসবুকের হিসাব অনুযায়ী বাংলাদেশে বর্তমানে ফেসবুক ব্যবহারকারী ৩ কোটির মতো। এদের অধিকাংশই ফেসবুককে নিরাপদ রাখেন না। ফলে প্রতারকরা এই সুবিধা নিচ্ছেন। অধিকাংশ ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রকৃত মালিককে আইডি ফেরত দিলেও সেটা সময় লাগছে। পড়তে হচ্ছে নানা ভোগান্তিতে। কখনো ফেসবুকে বন্ধু বানিয়ে করা হচ্ছে প্রতারণা, কখনো শারীরিক সম্পর্কের টোপ দেওয়া হচ্ছে, কখনো আবার নিখুঁত প্রেমের গল্প বানিয়ে চলছে প্রতারণার। জিনের বাদশা সেজে এমন ডিজিটাল সাইবার প্রতারকদের খপ্পরে পড়ে হাজার হাজার টাকা খুইয়েছেন অনেকে। গাড়ি-বাড়ির লোভ দেখিয়েও সর্বস্বান্ত করছে গ্রামের সহজ-সরল মানুষদের। আবার প্রযুক্তির এই প্রতারণার ফলে অনেকের সংসারও ভেঙে যাচ্ছে।

যারা এসব নিয়ে অভিযোগ করছেন তাদের বিষয়টির সুরাহা করতেও অনেক সময় লাগে। ফেসবুকের সঙ্গে যোগাযোগ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আইডি ফেরত দিলেও হ্যাকারদের ধরতে আরো বেশি সময় লাগে। এছাড়া এত বেশি অভিযোগ সেখানে অপরাধীদের ধরার চেয়ে বিপদে পড়া ব্যক্তির আইডি ফেরতে আগ্রহ বেশি তাদের।

শুধু সাধারণ মানুষ নয়, তারকারাও পড়ছেন এই ধরনের বিপদে। টাকা দাবি ছাড়াও তারকাদের ব্যক্তিগত জীবনের তথ্য আদান-প্রদানের খবর জানার কৌতূহল থেকেও তাদের আইডি হ্যাক করা হচ্ছে। প্রায়ই হ্যাক হচ্ছে তারকাদের ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডি ও ফ্যানপেজ। এতে বেশ বিব্রতকর অবস্থায় পড়ছেন তারা। গত বছর মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশীর ফেসবুক আইডি ও পেজ দুটিই হ্যাক করা হয়। হ্যাকাররা তার কাছে আইডি ফেরত দেওয়ার বিনিময়ে টাকা দাবি করে। দুইবার ফেসবুক আইডি ও পেজ হ্যাক হয়েছে অভিনেত্রী মেহ্জাবীনের। পরে ফিরেও পেয়েছেন। আইডি হ্যাকড হয়েছে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির। চিত্রনায়িকা পূর্ণিমার ফেসবুক আইডি দুইবার হ্যাক হয়েছে। তারকাদের এমন অভিযোগ অনেকেরই।

নিজের ফেসবুক আইডি সুরক্ষিত রাখার বিষয়টি জানেন না অনেকেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফেসবুকের পাসওয়ার্ড অন্য কোনো ক্ষেত্রে ব্যবহার করা উচিত না। এটি কারো সঙ্গে শেয়ার করাও ঠিক না। পাসওয়ার্ড হতে হবে ছোটোবড়ো অক্ষর ও নম্বর মিলিয়ে অন্তত আট সংখ্যার, যা সহজে কেউ ধারণা করতে না পারে।

কখনোই ফেসবুকের লগইন তথ্য ফেসবুক ছাড়া আর কোথাও প্রবেশ করানো যাবে না। অনেক সময় হ্যাকাররা ভুয়া সাইট তৈরি করে ফেসবুকের আইডির লগইন ইমেইল বা পাসওয়ার্ড চাইতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে আগে সেই ওয়েবসাইটের ইউআরএল দেখে নিন। যেখানে অনেক ব্যক্তি একই কম্পিউটার ব্যবহার করেন, সেখানে অবশ্যই ফেসবুক ব্যবহার শেষে লগআউট করুন। যদি ভুলে যান, তাহলে ফোন বা অন্য কোনো কম্পিউটারে ফেসবুকে লগইন করে সিকিউরিটি অ্যান্ড লগইন সেটিংয়ে গিয়ে দেখা যাবে সর্বশেষ কোথায় আপনি লগইন করেছিলেন। সেখানে ডিভাইস শনাক্ত করে লগআউট করে দেওয়া যাবে।

 

সূত্র : ইত্তেফাক পত্রিকা