জলবায়ু সমস্যা মোকাবেলাই হোক জাতীয় পতাকা উত্তোলন দিবসের অঙ্গীকার


» কামরুল হাসান রনি | ডেস্ক ইনচার্জ | | সর্বশেষ আপডেট: ০১ ডিসেম্বর ২০১৯ - ০৬:৫২:৫৭ অপরাহ্ন

১ ডিসেম্বর রবিবার সকালে রাজধানী ঢাকায় সবুজ আন্দোলন মিলনায়তনে সবুজ আন্দোলন ছাত্রফ্রন্টের উদ্যোগে জাতীয় পতাকা উত্তোলন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে জাতিসত্তার নিজস্ব পরিচিতির বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন নেতৃবৃন্দ।  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সবুজ আন্দোলন পরিচালনা পরিষদের চেয়ারম্যান বাপ্পি সরদার। অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সদস্য আব্দুর রহমান সহ ছাত্রফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথি বাপ্পি সরদার বলেন, ১৯৭১ সালের ২ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনে প্রথম জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এই পতাকা আমাদের স্বাধীনতার চেতনার প্রতীক। পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর শোষণ, অন্যায়, অত্যাচার, অবিচারের বিরুদ্ধে তৎকালীন ডাকসু নেতাদের উদ্যোগে ২ মার্চ সাড়া দিয়েছিল আমজনতা। প্রকৃতপক্ষে সেদিনের পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়েই বাঙালি ছাত্র-জনতা স্বাধীনতা সংগ্রামের অগ্নিমন্ত্রে উজ্জীবিত হয় এবং স্বাধীনতা অর্জনের পথে যাত্রা শুরু করে। পতাকা উত্তোলনই জানান দেয় স্বাধীন বাংলাদেশের বিকল্প নেই। এই পতাকা উত্তোলন আমাদের ভূখ- ছাড়িয়ে বিশ্ববাসীকে জানিয়ে দিয়েছে একটি শোষিত ও বঞ্চিত দেশের অধিকার এবং স্বাধিকার আদায়ের বিপ্লবের সূচনা বার্তা। দীর্ঘ ৯ মাসের বহু ত্যাগ, রক্তের বিনিময়ে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে। স্বাধীনতা সংগ্রামের ৯ মাস এই পতাকাই বিবেচিত হয় আমাদের জাতীয় পতাকা হিসেবে।

তিনি বলেন, একুশ শতকে এসে জলবায়ু সমস্যা আমাদের সামনে চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ চ্যালেঞ্জে যেকোন মূল্যে আামদের জিততে হবে। রক্তের বিনিময়ে অর্জিত ভূখন্ড যাতে পানির নিচে তলিয়ে না যায় সেজন্য আজকের জাতীয় পতাকা উত্তোলন দিবসে আমাদেরকে জলবায়ু সমস্যা মোকাবেলার অঙ্গীকার করতে হবে।