ঘুড়ি ছুটাতে গিয়ে বৈদ্যুতিক তারে শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু (ভিডিও)


» মুহাম্মদ গাজী তারেক রহমান | উত্তরা নিউজ, স্টাফ রিপোর্টার | সর্বশেষ আপডেট: ১৩ মে ২০২০ - ০৬:২৫:২৬ অপরাহ্ন

বাড়ীর পাশ দিয়ে যাওয়া উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বৈদ্যুতিক তারে আটকে মোহাম্মদ শান্ত নামের ১২ বছর বয়সী এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে। একই সাথে মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে শিশুটির মা আনোয়ারা বেগম (৩৮)। নিহতের গ্রামের বাড়ী লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার পালপাড়ায়।

আজ বেলা ১১.২০ মিনিটে রাজধানী তুরাগের চন্ডালভোগ এলাকায় অনাকাঙ্খিত বৈদ্যুতিক দূর্ঘটনায় এই প্রাণহানি ঘটে এবং আহতকে বেশ আশঙ্কাজনক অবস্থায় উত্তরার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের পরিবার চন্ডালভোগ মেইন রোডে অবস্থিত ২৮, ইসলাম মঞ্জিলের ভাড়া বাসার ৩য় তলায় গত এক বছর ধরে বসবাস করছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পলিথিনে সুতা পেচিয়ে বারান্দায় এসে সেটি উড়ানোর চেষ্টা করছিল শান্ত। এ সময় বাড়ির সামনে দিয়ে যাওয়া বিদ্যুতের তারে আটকে যায় পলিথিনটি। স্টিলের পাইপ দিয়ে সেটিকে ছুটাতে গিয়ে হাই-ভোল্টেজের বৈদ্যুতিক তারে আটকে পড়ে শান্ত। সাথে সাথে আগুন ধরে যায় তার হাতে। ততক্ষণে মা আনোয়ারা বেগম সন্তানকে রক্ষা করতে গিয়ে নিজেও পতিত হন দুর্ঘটনার কবলে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন তুরাগ থানা পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও বিদ্যুতের কর্মীরা। পুলিশ জানায়, খেলা করতে গিয়ে অজ্ঞতাবশতঃ ঘটেছে এই দূর্ঘটনা ও প্রাণহানি।

অপরদিকে, এ ধরনের অনাকাঙ্খিত মৃত্যু ও দূর্ঘটনা এড়িয়ে চলতে যেসকল বাড়ির সামনে দিয়ে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বৈদ্যুতিক তার প্রবাহিত হয়েছে সেসকল বাড়ির বাসিন্দাদের উচিত পরিবারের সকল ছোট সদস্যদের উপর বিশেষ দৃষ্টি রাখা। একই সাথে বাড়ি নির্মাণের সময় বৈদ্যুতিক খুটি ও তার হতে বাড়ির নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখা জরুরী বলে মনে করছেন স্থানীয় সচেতন ব্যক্তিবর্গরা।