উত্তরা নিউজ উত্তরা নিউজ
অনলাইন রিপোর্ট


গর্ভকালীন সময়ে বেগুন খাওয়া ক্ষতিকর






গর্ভবতীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সুষম খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন ডাক্তাররা। আগত সন্তানের সঠিকভাবে বেড়ে উঠার জন্য এ সময় সুষম খাবার খাওয়া জরুরি। এ সময় গরম খাবার, ঠান্ডা খাবার এসব যেমন খাওয়া থেকে সতর্ক থাকতে বলেন মুরুব্বিরা, তেমনি এমন একটা খাবার আছে, যা না খেতে বলা হয় গর্ভবতীদের, তা হলো – বেগুন। বেশিরভাগ মানুষই তরকারি হিসেবে বা ভর্তা করে খেতে পছন্দ করেন এই সবজি। এতে প্রচুর ভিটামিন,মিনারেল ও পুষ্টিগুণ আছে। পেটের গ্যাস দূর করা, নিদ্রাহীনতা, হজমের সমস্যায়ও উপকারি বেগুন।

তবে হাজার বছরের পুরোনো চিকিৎসা শাস্ত্র আয়ুর্বেদ গর্ভকালীন সময়ে বেগুন না খেতে জোরালো ভাবে পরামর্শ দিয়ে আসছে। যে কারণে গর্ভকালীন সময়ে বেগুন খাওয়া ক্ষতিকর-

* বেগুনে প্রচুর পরিমাণে ফাইটোহরমোন থাকে, যা নারীদের রজস্রাব জটিলতার চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয়। প্রতিদিন বেগুন খেলে নারীদের রজস্রাব সমস্যা দূর হয়। তাই গর্ভকালীন সময়ে বেগুন বর্জন করার এটাই অন্যতম কারণ হতে পারে।

* বেগুনে রজস্রাব বৃদ্ধির অনেক উপাদান আছে, সেসব উপাদান গর্ভপাত ঘটাতে পারে।

* বেগুনে এমন কিছু উপাদান আছে যা এসিডিটি তৈরি করতে পারে। তাই গর্ভকালে বেগুন না খেতেই পরামর্শ দেন আয়ুর্বেদ শাস্ত্রের চিকিৎসকরা।

অন্যদিকে, একটি বেগুনে ৬.৪ মিলিগ্রাম ভিটামিন এ, ৪.৯ মিলিগ্রাম আঁশ, ৬ মিলিগ্রাম আয়রন থাকে। এসব পুষ্টি উপাদান গর্ভকালীন মায়ের জন্য উপকারিও বটে। তবে যেহেতু আয়ুর্বেদ একটি হাজার বছরের পুরোনো পরীক্ষিত শাস্ত্র, তাই তাদের গবেষণালব্ধ তথ্যকে প্রাধান্য দিয়ে গর্ভবতী মায়েদের বেগুন না খাওয়া বা একেবারেই কম খাওয়া উচিত বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে লাইফস্টাইল বিষয়ক পোর্টাল স্টাইল ক্রেজ।

উত্তরা নিউজ/এস,এম,জেড