কুটির, ক্ষুদ্র, ছোট উদ্যোক্তাদের ঋণ দিতে আগ্রহী নয় বেসরকারি ব্যাংকগুলো


» এইচ এম মাহমুদ হাসান | | সর্বশেষ আপডেট: ২৮ জুলাই ২০২০ - ১০:৫৩:৩৮ পূর্বাহ্ন

ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের জন্য ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত কুটির, ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি (সিএমএসএমই) খাতের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু ঋণের টাকা ফেরত না পাওয়ার আশঙ্কায় এ খাতের উদ্যোক্তাদের ঋণ দিতে আগ্রহী নয় বেসরকারি ব্যাংকগুলো। তাই এসব ঋণে নিশ্চয়তা ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম চালু করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর আওতায় সিএমএসএমই খাতে বিতরণ করা ঋণ আদায় না হলে মূল ঋণের সর্বোচ্চ ৮০ শতাংশ পর্যন্ত পরিশোধ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগ থেকে এ-সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করা হয়েছে। সার্কুলারে বলা হয়, সম্ভাবনাময় সিএমএসএমই খাতে ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে সহায়ক জামানত গ্রহণের বিষয়টি একটি উল্লে­খযোগ্য প্রতিবন্ধকতা হিসেবে কাজ করছে। এ খাতে প্রান্তিক পর্যায়ের অনেক গ্রাহকের ঋণ পরিশোধের সামর্থ্য থাকলেও কেবল সহায়ক জামানতের অভাবে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান তাদের ঋণ প্রদানে আগ্রহী হয় না।

করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে দেশের অর্থনীতিতে সিএমএসএমই খাতে সৃষ্ট বিরূপ প্রভাব থেকে উত্তরণ এবং ঋণপ্রবাহ বৃদ্ধির লক্ষ্যে জামানতবিহীন ঋণের বিপরীতে ক্রেডিট গ্যারান্টি সুবিধা প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই বিভাগের আওতায় ‘ক্রেডিট গ্যারান্টি স্ক্রিম’ ইউনিটের মাধ্যমে এ সুবিধা প্রদান করা হবে। এ স্কিমে অংশগ্রহণকারী ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ক্রেডিট গ্যারান্টি সুবিধা প্রাপ্য হবে।

এতে উল্লেখ করা হয়, সিএমএসএমই খাতে ঘোষিত ২০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজের আওতায় কেবল চলতি মূলধন ঋণের বিপরীতে এ ক্রেডিট গ্যারান্টি সুবিধা প্রদান করা হবে। আগ্রহী তফসিলি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান ক্রেডিট গ্যারান্টি সুবিধার জন্য নির্ধারিত নীতিমালার আলোকে সিজিএস ইউনিটের সাথে অংশগ্রহণ চুক্তি সম্পাদন করতে হবে। সম্পাদিত চুক্তির আওতায় নির্ধারিত সিএমএসএমই পোর্টফোলিওর বিপরীতে সিজিএস ইউনিট হতে পোর্টফোলিও গ্যারান্টি প্রদান করা হবে।

তহবিল পর্যাপ্ততার ওপর ভিত্তি করে স্কিমে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের জন্য সিএমএসএমই খাতে চলতি মূলধন ঋণের জন্য নির্ধারিত পোর্টফোলিও সীমার সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ পর্যন্ত পোর্টফোলিও গ্যারান্টি ক্যাপ প্রদান করা হবে। পোর্টফোলিও গ্যারান্টি ক্যাপের আওতায় কোনো একক উদোক্তা বা ঋণগ্রহীতার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৮০ শতাংশ পর্যন্ত গ্যারান্টি কভারেজ প্রদান করা হবে।