কাশ্মীরে হাতে অস্ত্র দেখলেই হত্যার নির্দেশ

উত্তরা নিউজ টোয়েন্টিফর ডটকম। অনলাইন:  ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে কারো হাতে অস্ত্র দেখার সাথে সাথেই তাকে গুলি করে হত্যার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন ভারতীয় সেনা কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট জেনারেল কে এস ঢিলোঁ। এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল এনডিটিভি।

তিনি বলেন,‘কাশ্মীরে যদি কেউ হাতে বন্দুক তুলে নেয় তাহলে তাকে দেখা মাত্রই গুলি করা হবে।’

ঢিলোঁ বলেন, ‘ আপনাদের সন্তানকে বন্দুক পরিত্যাগ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে বলুন।’

পুলওয়ামা হামলার পর সোমবার সেনা অভিযানে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জঈশ-ই-মোহাম্মদের তিন সদস্য নিহত হয়। সেনাবাহিনীর সেই অভিযান নিয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে এমন কথা বলেন ঢিলোঁ।

এদিকে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে চলমান উত্তেজনা নিরসনে কাজ করার আশ্বাস দিয়েছেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল-যুবেইর।

যুবেইর বলেন, ‘সৌদি আরবের উদ্দেশ্য হলো এই দুই দেশের মধ্যকার টানাপোড়েন কমিয়ে আনার চেষ্টা করা। সৌদি দেখতে চায় এই দুই প্রতিবেশীর মধ্যকার বিভেদগুলো শান্তিপূর্ণভাবে সমাধানের কোনো উপায় বের করা যায় কিনা।’ সোমবার তিনি এসব কথা বলেন। এ খবর জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

সৌদি যুবরাজ এবং তার উপ-প্রধানমন্ত্রী এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, একমাত্র আলোচনার মাধ্যমেই ভারত-পাকিস্তানের সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান সম্ভব।

এর আগে পাকিস্তান সফরে যুবরাজ দেশটির সঙ্গে ২০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিয়োগ চুক্তি করেন। পাকিস্তানের ভঙ্গুর অর্থনীতি ঠিকঠাক করতে সাহায্য করবে এই বিনিয়োগ।

অন্যদিকে ভারতের সঙ্গে চলমান উত্তেজনা কমাতে জাতিসংঘ মহাসচিবের কাছে অনুরোধ করেছে পাকিস্তান। মঙ্গলবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ কুরেশি এক চিঠির মাধ্যমে এ অনুরোধ করেন বলে জানিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মিডিয়া।

চিঠিতে কুরাইশি বলেন, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের বলপ্রয়োগের হুমকির পর আমাদের এ অঞ্চলের নিরাপত্তা পরিস্থিতি ক্রমাগত অবনতির দিকে যাচ্ছে। এ বিষয়ে জরুরি ভিত্তিতে আমি আপনার মনোযোগ আকর্ষণ করছি। উত্তেজনা কমাতে পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি হয়ে পড়েছে। কাজেই পরিস্থিতি শান্ত করতে জাতিসংঘ পদক্ষেপ নেবে বলে আশাকরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *