উত্তরা নিউজ উত্তরা নিউজ
অনলাইন রিপোর্ট


কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে গাযওয়ায়ে হিন্দ রচিত হবে: বাবুনগরী






উগ্র হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকার মোদি গত সোমবার ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলুপ্ত করে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেওয়ার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সংগ্রামী মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদরাসার সহকারী পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) আসর নামাজের পর হাটহাজারী ডাক বাংলো চত্ত্বরে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ হাটহাজারী উপজেলার উদ্যোগে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকার গায়ের জোরে অস্ত্রের মুখে কাশ্মীরের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করে কাশ্মীরী মুসলমানদের অধিকার কেড়ে নিয়েছে।

বাবুনগরী বলেন,  অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপ এবং প্রশাসনিক বিভক্তিকরণের মাধ্যমে মোদি সরকার কাশ্মীরী জনগণের সাথে রাষ্ট্রীয় বিশ্বাসঘাতকতা ও প্রতারণা করেছে। মিখাইল গর্ভাচেভের আমলে যেভাবে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙ্গে খান খান হয়েছিল, মোদি সরকারের আমলে ভারতের সেই পরিণতি হতে যাচ্ছে। মোদি ভারতকে সোভিয়েত ইউনিয়নের পরিণতির দিকেই ঠেলে দিচ্ছে। মোদির এ পদক্ষেপের কারণে কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে গাযওয়ায়ে হিন্দের চমৎকার অধ্যায় রচিত হবে।

তিনি বলেন, ১৯৪৮ সালে জাতিসংঘের প্রস্তাবনায় স্পষ্ট বলা হয়েছে যে, কাশ্মীরের জনগণের মতামতের ভিত্তিতেই সেখানকার সমস্যার সমাধান করতে হবে। অথচ ভারত জাতিসংঘের এই প্রস্তাবকে লঙ্ঘন করে অস্ত্রের বলে পুরো কাশ্মীরকে জুলুমের রাজ্যে পরিণত করেছে। অনতিবিলম্বে কাশ্মীরের মুসলমানদেরকে ঘিরে সকল অন্যায় ও দমনপীড়নমূলক পদক্ষেপ থেকে বিরত হয়ে কাশ্মীরী জনগণের অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে।

এ প্রতিবাদ সভায় বাবুনগরী ইসকানের বিরুদ্ধেও  আওয়াজ তোলেন। তিনি বলেন, অবিলম্বে উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন ইসকনের সকল কার্যক্রম নিষিদ্ধ করতে হবে এবং মুসলিম বিদ্বেষী প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলা করে আইনের আওতায় এনে বিচার করতে হবে। তিনি অবিলম্বে বিশিষ্ট ইসলামী সংগীতশিল্পী মাওলানা আলমগীর বিন কবির এবং তরুণ আলেম মুফতী সানাউল্লাহসহ কারাবন্দী সকল উলামায়ে কেরামের নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করেন।

প্রতিবাদ সভা শেষে বৃষ্টি উপেক্ষা করে হুইল চেয়ারে চড়ে আল্লামা বাবুনগরী সাহেব বিক্ষোভ মিছিলের নেতৃত্ব দেন। হাজার হাজার তাওহিদী জনতার অংশগ্রহণে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল হাটহাজারী বাজার, বাসস্টেশন, কলেজ গেইট প্রদক্ষিণ করে হাটহাজারী মাদরাসার সামনে এসে সমাপ্ত হয়।

এ  প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন হাটহাজারী পৌরসভা হেফাজতের সম্মানিত সভাপতি মাওলানা মীর ইদ্রীস।মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী ও মাওলানা এমরান সিকদারের যৌথ সঞ্চালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- হাটহাজারী মাদরাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা আহমদ দিদার কাসেমী, আল্লামা মুমতাজুল করিম বাবাহুজুর, মেখল মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক মুফতী মোহাম্মদ আলী, মাওলানা কাযী শফিউল্লাহ, মাওলানা জাহাঙ্গীর মেহেদী, মাওলানা মাহমুদুল হোসাইন, মাস্টার মোহাম্মদ আহসানুল্লাহ, মাওলানা আব্দুল মাবুদ, জনাব শফিউল আলম, জনাব নূর মোহাম্মদ, মাওলানা আব্দুর রহিম, মাওলানা হাবিবুর রহমান, মাওলানা আসাদুল্লাহ, মাওলানা আব্দুল্লাহ বিন হাসান প্রমুখ।

উত্তরা নিউজ/এস,এম,জেড