মোহাম্মদ আব্দুর রহমান | কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি মোহাম্মদ আব্দুর রহমান | কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি


কালীগঞ্জে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলছে






গাজীপুরের কালীগঞ্জে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে। কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রো গতকাল সোমবার পর্যন্ত ৫ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তুমলিয়া ইউনিয়নের মতিউর রহমানের ছেলে রাশেদুল (২৮), একই ইউনিয়নের বান্দাখোলা গ্রামের স্বনিন্দ দাসের ছেলে সজিব (১৯), দাউদপুর ইউনিয়নের বাগলা গ্রামের নাজমুল কাজীর মেয়ে শারমিন আক্তার (১৮), ডাঙ্গা ইউনিয়নের কাজৈরচর গ্রামের কফিলউদ্দিনের ছেলে আতাবউদ্দিন (৫০) ও কালীগঞ্জ পৌরসভার বালীগাঁও গ্রামের আব্দুর রহিম ডেঙ্গু রোগী হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সম্প্রতি মো. হাবিব, নাদিয়া,ইয়াসিন, রায়হান ও কমলা কস্তা নামে ৫জন রোগী ডেঙ্গু জ্বরে ভোগে সরকারি হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। এছাড়া কালীগঞ্জ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড উত্তরগাঁও গ্রামের মহরআলীর মেয়ে মীম আক্তার (১৭) ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে কালীগঞ্জ আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে রোববার রাতে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. ছাদেকুর রহমান আকন্দ চিকিৎসক ও নার্সদের নিয়ে সোমবার সকালে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের মাঝে ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় লিফলেট বিতরণ করেন। ডেঙ্গু সংক্রান্ত বিষয়ে ডা. মো. ছাদেকুর রহমান আকন্দ বলেন, বর্তমানে ৫ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। সম্প্রতি ৫জন রোগী চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি চলে গেছে। মানুষকে সচেতন হতে হবে। অব্যবহৃত পানির পাত্র ধ্বংস অথবা উল্টে রাখতে হবে যাতে পানি না জমে। দিনে অথবা রাতে ঘুমানোর সময় অবশ্যই মশারি ব্যবহার করতে হবে। প্যারাসিটামল ব্যতীত অন্য কোন ব্যথা নাশক বড়ি খাওয়া যাবে না। কুসুম গরম পানি দিয়ে শরীর মুছে দিতে হবে ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে।