করোনা নয়, আমরা ‘আতঙ্ক ভাইরাসে’ আক্রান্ত


» মুহাম্মদ গাজী তারেক রহমান | উত্তরা নিউজ, স্টাফ রিপোর্টার | সর্বশেষ আপডেট: ১০ জুন ২০২০ - ০২:০০:৫৬ অপরাহ্ন

বর্তমান পরিস্থিতিতে আমাদের দেশে করোনাভাইরাস যা প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি, জনমনে তার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি প্রভাব বিস্তার করেছে যে জিনিসটি সেটি হচ্ছে ‘আতঙ্ক’। এই আতঙ্ক এমন পর্যায়ে পৌঁছে গেছে যে, করোনার রোগীর সাথে একই ছাদের নিচে বাস করা তো দূরের কথা আশপাশের কয়েক মাইল দূরত্বের মধ্যে করোনা আক্রান্ত রোগীর বাসা পাওয়া গেলে সেটিকে তালা মেরে বন্ধ করে দেয়ার মতো ঘটনাও বাংলাদেশে ঘটেছে। এছাড়াও সংবাদ মাধ্যমের কল্যাণে করোনা সন্দেহে পরিবারের সদস্যকে রাস্তায় কিংবা জঙ্গলে ফেলে আসার মতো ঘটনাও আমরা দেখেছি।

আসলে, এসবের মূলে হচ্ছে আতঙ্ক। বাংলাদেশের এসব আতঙ্কগ্রস্থ মানুষদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, করোনায় আক্রান্ত, মৃত্যুবরণকারী সবার উপরের সারির দেশ হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সেখানে এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে বিশ লক্ষ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এবং আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রায় সোয়া লক্ষ মানুষ। আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় পৌনে আট লক্ষ মানুষ সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরলেও এখনও চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন প্রায় সাড়ে এগার লক্ষের মতো রোগী। যা সর্বক্ষেত্রেই বাংলাদেশে মোট আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থ্য হওয়া ব্যক্তিদের তুলনায় কয়েক গুণ বেশি।

আমরা যদি ব্রাজিল, স্পেন, ইতালি, ফ্রান্স, রাশিয়ার মতো দেশগুলোর দিকে তাকাই সেখানেও বাংলাদেশের তুলনায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ও মৃত্যুর হার কয়েকগুণ বেশি। কিন্তু, তারপরেও দেখুন সেখানকার জনজীবনে আমাদের মতো এত ভয়-ভীতি আছে কিনা? হ্যা, তবে তারা সচেতন। করোনার এই হটস্পটগুলোতেও সেখানকার মানুষজন বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলন করছে, কর্মস্থলে ফেরার জন্য আন্দোলন করছে। যেখানকার মানুষগুলো চোখের সামনে নিজেদের স্বজন, প্রতিবেশীদের মৃত্যু স্বচক্ষে প্রত্যক্ষ করছে প্রতিনিয়তই। সেখানে করোনা নিয়ে আমাদের মতো এত মাতামাতি নেই অথচ এখন পর্যন্ত সেসব দেশের তুলনায় আমাদের দেশে মৃত্যু কিংবা আক্রান্তের সংখ্যা কম হওয়া সত্ত্বেও আমরা এ নিয়ে চরম আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়েছি।

সরকার আমাদেরকে সচেতনতার কথা বলেছে, আতঙ্কিত হওয়ার কথা কিন্তু বলেনি। অথচ আমরা সচেতনতার বদলে আতঙ্কিতই বেশি হচ্ছি। ফলে মনে হয়, করোনা এদেশে যতটা না প্রভাব বিস্তার করেছে তারচেয়ে বেশি প্রভাব ছড়িয়ে আতঙ্ক। বর্তমানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যার চেয়ে আতঙ্ক নামক ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাই বেশি।

এমন পরিস্থিতিতে আমরা নিজেদের মাথা মস্তিষ্ক খাটিয়ে এটুকু বোঝার চেষ্টা করবো না যে, করোনা আক্রান্ত হলেই মানুষ মারা যাবে এমনটা কিন্তু নয়। যদি তাই হতো তাহলে আপনিই হিসেবে করে দেখুন এখন পর্যন্ত পৃথিবীতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারীর সংখ্যা কত হতো। অথচ, আক্রান্তদের অধিক সংখ্যকই সুস্থতা লাভ করেছে।

পরিশেষে বলতে চাই, করোনা পরিস্থিতিতে আমরা যদি সচেতনতার বদলে আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়ি তাহলে কিন্তু আমাদের এই আতঙ্ককে কাজে লাগিয়ে ফায়দা নিতে চাইবে সুযোগ সন্ধানী স্বার্থবাদী গোষ্ঠীরা। যাদের কাজই হচ্ছে সাধারণ মানুষদেরকে জিম্মি করে নিজেদের স্বার্থ হাসিলে মেতে ওঠা। তাই করোনার বিরুদ্ধে এই যুদ্ধে আসুন আমরা আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হই, পুঁজিবাদী নব্য হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করি সকলে মিলে।

লেখকঃ সাংবাদিক।
ই-মেইল: unews.gazitareq@gmail.com