এএসপি ও ওসি প্রত্যাহার রাষ্ট্রের গোঁয়ার্তুমির বহিঃপ্রকাশ -ইশা ছাত্র আন্দোলন


» এইচ এম মাহমুদ হাসান | | সর্বশেষ আপডেট: ১৯ এপ্রিল ২০২০ - ০৫:৪৮:৫৫ অপরাহ্ন

সদ্য প্রয়াত বাংলাদেশের জননন্দিত মুফাসসির মাওলানা জুবায়ের আহমাদ আনসারী’র জানাযায় লকডাউনের মাঝেও অসংখ্য মানুষ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে যোগদান করেছেন। করোনায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে এমন বিশাল জমায়েত যদিও কোনভাবেই কাঙ্ক্ষিত ছিল না; কিন্তু অপরিকল্পিতভাবে সৃষ্ট এমন জনসমুদ্র সীমিত স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষে নিয়ন্ত্রণ করা ছিল প্রায় অসম্ভব। যা স্থানীয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্যরা ব্যক্ত করেছেন।

আজ ১৯ এপ্রিল ২০২০ইং রবিবার এক যুক্ত বিবৃতিতে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি এম. হাছিবুল ইসলাম এবং সেক্রেটারি জেনারেল নূরুল করীম আকরাম বলেন, লকডাউন চলাকালীন রাষ্ট্রের সার্বিক নিরাপত্তা বিবেচনায় স্থানীয় প্রশাসন, জেলা প্রশাসন ও এনএসআইসহ সংশ্লিষ্ট কেউই এর দায় এড়াতে পারেনা। বিশেষভাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও এমন সংকটময় মুহুর্তে দায় এড়িয়ে যেতে পারেন না। এছাড়াও উক্ত জানাজার জমায়েত কে কেন্দ্র করে ইসলাম বিদ্বেষী একটি চক্র ইলেকট্রনিক ও সোস্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ভাবে ইসলাম নিয়ে কটুক্তি ও অসংলগ্ন অশালীন মন্তব্য করেই যাচ্ছে। যা এদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ ইসলাম প্রিয় তৌহিদী জনতাকে আহত করছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, গত ১০ এপ্রিল বরগুনা জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী আওয়ামী লীগ নেতার জানাজায় বিশাল জমায়েত লক্ষ্য করা যায়। এছাড়াও ত্রাণ বিতরণকে কেন্দ্র করে সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নির্মূল ও নিয়ন্ত্রণ) আইন-২০১৮ কে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বিশাল জমায়েত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। যা দেশের করোনা সংক্রমণকে এক অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে গভীর রাতে সরাইল থানার ওসি প্রত্যাহার, আজ সকালে সহকারী পুলিশ সুপার প্রত্যাহার– রাষ্ট্রের গোঁয়ার্তুমির চরম বহিঃপ্রকাশ। নেতৃবৃন্দ সরাইলের ঘটনায় এএসপি ও ওসির প্রত্যাহারাদেশ বাতিলের দাবি করেন।

সাথে সাথে নিকট ভবিষ্যতে যে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত জমায়েত বন্ধে পূর্ব প্রস্তুতি ও কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ারও আহ্বান জানান।