উত্তরায় ভোটার তালিকা হালনাগাদ ও ছবি তোলা কার্যক্রমের প্রথম দিন


» মুহাম্মদ গাজী তারেক রহমান | উত্তরা নিউজ, স্টাফ রিপোর্টার | সর্বশেষ আপডেট: ০৫ নভেম্বর ২০১৯ - ০৬:৩৬:০১ অপরাহ্ন

বাংলাদেশ ইলেকশন কমিশন কর্তৃক ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৫১নং ওয়ার্ডে শুরু হয়েছে ভোটার তালিকা হালনাগাদ ও ছবি তোলার কার্যক্রম। এ উপলক্ষে ৫ নভেম্বর উত্তরা ১১নং সেক্টর কল্যাণ সমিতি কার্যালয়ে শুরু হয় নতুন ভোটারদের ছবি তোলা পর্ব। সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া কার্যক্রমটিতে ব্যাপক পরিমাণে নতুন ভোটার হতে ইচ্ছুক তরুণ-তরুণীদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গিয়েছে।

৫ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া হালনাগাদ ও ছবি তোলার কার্যক্রমটি প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ৬ ও ৭ তারিখ পর্যন্ত চলবে।

ভোটার তালিকা হালনাগাদ ও ছবি তোলা পর্বটি পরিদর্শনে গিয়ে কথা হয় উত্তরা থানা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ফাউজুল কবির খানের সাথে। চলমান কার্যক্রমের বিষয়ে তিনি উত্তরা নিউজকে বলেন, “নতুন ভোটার ইচ্ছুক প্রার্থীদের স্লিপ ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পর্যাপ্ত যাচাই-বাচাই সাপেক্ষে আমরা ছবি তোলা কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছি। সকাল ৯টা থেকে আমাদের কার্যক্রম শুরু হয়েছে যা বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে।” ভোটার হতে আগ্রহী প্রার্থীদের উপস্থিতির ব্যাপারে মো. ফউজুল কবির খান বলেন, সকাল থেকেই ভোটার হতে ইচ্ছুক নারী-পুরুষদের উপস্থিতি খুবই সন্তোষজনক।

ভোটার হতে আসা প্রার্থীদের অনুভূতি: ভোটার হওয়ার নিমিত্তে ছবি তুলতে এসে তাদের অনুভূতির কথা উত্তরা নিউজে প্রকাশ করেছে আগত তরুণ-তরুণীরা। যাদের অধিকাংশের বয়স ১৮-২০ বছর। কথা হয় ছবি তুলতে আসা আশিকের সাথে। আশিক জানায়, ভোটার হব, ভাবতে পেরে ভালো লাগছি। তবে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে থাকতে অনেক আবারও বিরক্ত লাগছে।” আশিকের মত এমন তথ্য জানিয়েছে সুজন, রানা, শাকিলসহ আরও অনেকে। অপরদিকে নারীদের লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা তরুণীরাও জানিয়েছে “দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার জন্য ফ্যানের ব্যবস্থা হলে ভালো হতো।” নতুন ভোটার হওয়ার জন্য ছবি তুলতে আসা অনেকেই আবার অভিযোগ করে বলেন, “আমরা ছবি তোলার জন্য সকালে স্লিপ নিয়ে আসি। কিন্তু, এখানে এসে জানতে পারি নতুন ভোটারদেরকে জন্ম সনদের কপি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট, বাবা-মায়ের এনআইডি কার্ডের কপি ও বিদ্যুৎ বিলের ফটোকপি লাগবে। তাই আমাদেরকে ফিরে পুনরায় বাসায় গিয়ে সেগুলো নিয়ে আসতে হয়েছে। এটা যদি আমাদেরকে আগে থেকে জানিয়ে দেয়া হতো, তাহলে এই বিরম্বনায় পড়তে হতো না।”

৫১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের সহযোগিতা: উত্তরা ১১নং সেক্টর কল্যাণ সমিতির কার্যালয়ে নতুন ভোটার হতে আগ্রহী প্রাথীদের ছবি তোলার কার্যক্রম পরিদর্শনে গিয়ে দেখা হয় ডিএনসিসি ৫১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ শরীফুর রহমানের সাথে। কার্যক্রমটিতে আগত প্রার্থীদের বিভিন্ন কাগজ-পত্র যাচাই, তথ্য সহায়তা, সইসহ কার্যক্রমটিতে ওয়ার্ডবাসীকে পর্যাপ্ত সহযোগিতা করতে দেখা যায় তাকে। এ সময় নিজ ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ ও ছবি তোলার কার্যক্রমের বিষয়ে কাউন্সিলর শরীফুর রহমান উত্তরা নিউজকে বলেন, “এখানে যারা ভোটার হতে এসেছেন তারা অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র প্রদান করে যার যার ছবিসহ অন্যান্য কাজগুলো করিয়ে নিচ্ছেন।” তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন কর্তৃক আজকের এই কার্যক্রমে আমরা ডিএনসিসি ৫১নং ওয়ার্ড কর্তৃপক্ষ সর্বোচ্চ সহযোগিতা করে যাচ্ছি যা আগামী আরও দিন চলমান থাকবে।”

নিরাপত্তায় ভিডিপি ও কমিউনিটি পুলিশিংঃ নতুন ভোটারদের হালনাগাদ ও ছবি তোলা কার্যক্রমটির নিরাপত্তা ব্যবস্থায় আনসার-ভিডিপি ও উত্তরা পশ্চিম থানা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের কার্যক্রম লক্ষ করা গিয়েছে। দায়িত্বরত ভিডিপির সদস্যগণ ভোটার হতে আসা প্রার্থীদের দীর্ঘ সারিগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সতর্ক ছিলেন। অন্যদিকে কার্যক্রমের সার্বিক পরিবেশ বজায় রাখতে কমিউনিটি পুলিশিং সদস্যদেরও দেখা গেছে বেশ তৎপর। এ সময় কথা হয় উত্তরা পশ্চিম থানা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান আকন্দ স্বপনের সাথে। তিনি উত্তরা নিউজকে বলেন, “আমাদের কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সদস্যরা এখানকার সার্বিক পরিবেশ-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়াও এখানকার ওয়ার্ড কাউন্সিলর শরীফুর রহমানও আমাদেরকে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।”

নতুন ভোটার হতে আসা প্রার্থীগণ সাথে যেসব কাগজ-পত্র নিয়ে আসবেন: নতুন ভোটারগণ ছবি তোলার দিন প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র নিয়ে না আসলে আবারও ফিরে যেতে হবে বাসায়। এজন্য বাসা থেকে আসার সময় আপনার (১) জন্মসনদের অনলাইন কপি (২) শিক্ষা সনদের ফটোকপি, (৩) পিতা-মাতার জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি, (৪) বিদ্যুৎ বিলের ফটোকপি অবশ্যই সঙ্গে করে নিয়ে আসবেন।