ইতিহাস গড়লেন রামোস, শীর্ষে রিয়াল মাদ্রিদ


» Masud Rana | | সর্বশেষ আপডেট: ২২ জুন ২০২০ - ১১:৫২:৫১ পূর্বাহ্ন

২০১২ সালের পর মাত্র একবারই লা লিগা শিরোপা ঘরে তুলেছে রিয়াল মাদ্রিদ। শিরোপায় পাখির চোখ করলেও বঞ্চিতই হয়েছে বারবার। সেই শিরোপা জেতার লড়াইয়ে আর মাত্র ৮টি জয় দূরে আছে জিনেদিন জিদানের দল। সর্বশেষ রিয়াল সোসিয়েদাদকে ২-১ গোলে হারিয়ে তারা অবস্থান করছে শীর্ষে।

৩০ ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদের সংগ্রহ ৬৫ পয়েন্ট। বার্সারও সংগ্রহ সমান ৬৫ পয়েন্ট। কিন্তু মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে থাকায় শীর্ষে রয়েছে রিয়াল।

প্রতিপক্ষের মাঠে জয় পেলেও প্রথমার্ধে ছন্নছাড়া ছিল মাদ্রিদ। বরং বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করে তাদের ঘাম ঝরিয়েছে সোসিয়েদাদ।

দ্বিতীয়ার্ধে ভাগ্যদেবী সহায় ছিল বলেই প্রথম গোলের দেখা পায় রামোসরা। শুরুর একাদশে সুযোগ পাওয়া ভিনিসিয়াস জুনিয়রের কল্যাণে আসে পেনাল্টি। ডি বক্সে তিনি ফাউলের শিকার হলে ৫০ মিনিটে স্পট কিক থেকে দলকে লিড এনে দিয়েছেন সের্হিয়ো রামোস। এই গোল করে লা লিগায় ইতিহাসও গড়ে ফেলেছেন এই ডিফেন্ডার। লিগে ৬৮ গোল করেছেন। লা লিগায় কোনও ডিফেন্ডারের এটাই সর্বাধিক গোলের রেকর্ড!

৬৮ মিনিটে বিতর্ক না হলে সমতা সূচক গোলটি পেয়েই গিয়েছিল সোসিয়েদাদ। কিন্তু গোলটি নিয়ে বিতর্ক থাকায় তা বাতিল করে দেন রেফারি। বদলি খেলোয়াড় আদনান গোল করেছিলেন, কিন্তু প্রতিপক্ষ খেলোয়াড় মেরিনো অফসাইডে থাকায় বাতিল হয়ে যায় সেটি। মেরিনো বলে স্পর্শ করেননি কিন্তু অফিসিয়ালরা মনে করেছেন তিনি রিয়াল গোলকিপার কোর্তোয়ার সামনের অংশ ব্লক করে বাধা সৃষ্টি করেছেন!

৭০ মিনিটে রিয়াল মাদ্রিদের দ্বিতীয় গোলটি করেছেন করিম বেনজেমা। এর পরেও স্বাগতিক সোসিয়েদাদ আক্রমণে উঠে বেশ কিছু চেষ্টা করেছিল। সেসব জালে জড়ালে পরিস্থিতি হয়তো ভিন্ন দিকে মোড় নিতে পারতো। ৮০ মিনিটে মিকেল মেরিনো গোল করলে ম্যাচটাতে কিছুটা উত্তেজনা ছড়িয়েছিল সোসিয়েদাদ।

রিয়াল মাদ্রিদের জন্য বাড়তি চাপ সৃষ্টি করেছিল অধিনায়ক রামোসের চোট। প্রথম গোল করেই মাঠ ছেড়ে যেতে বাধ্য হন তিনি। যদিও পরে আর কোনও ঝামেলা পোহাতে হয়নি।